ফ্র্যাঞ্চাইজির সর্বোচ্চ উদ্বোধনী পেতে যাচ্ছে ‘মিশন ইম্পসিবল’ সপ্তম পর্ব

ফ্র্যাঞ্চাইজির সর্বোচ্চ উদ্বোধনী

চলতি সপ্তাহে মুক্তি পেতে যাচ্ছে টম ক্রুজ অভিনীত বহুল জনপ্রিয় ‘মিশন ইম্পসিবল’ ফ্র্যাঞ্চাইজির সপ্তম সংস্করণ ‘মিশন ইম্পসিবলঃ ডেড রেকনিং’। চলতি বছরে বেশ কয়েকটি ফ্র্যাঞ্চাইজি সিনেমা বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পরেছে। তবে ‘মিশন ইম্পসিবলঃ ডেড রেকনিং’ সিনেমাটি বিশ্বব্যাপী বক্স অফিসে ভিন্ন কিছু করতে যাচ্ছে বলে মনে করছেন ট্রেড বিশেষজ্ঞরা। সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা গেছে, বিশ্বব্যাপী বক্স অফিসে ফ্র্যাঞ্চাইজির সর্বোচ্চ উদ্বোধনী পেতে যাচ্ছে ‘মিশন ইম্পসিবল’ সপ্তম সংস্করণের প্রথম পর্বটি। প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া থেকে এমনটাই ধারণা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

সপ্তাহের মাঝামাঝি মুক্তির কারনে বক্স অফিসে ৫ দিনের বর্ধিত সপ্তাহান্ত পেতে যাচ্ছে বহুল প্রতীক্ষিত এই সিনেমাটি। হলিউডের প্রভাবশালী সংবাদ মাধ্যম ডেডলাইনের প্রতিবেদন অনুসারে, মুক্তির প্রথম সপ্তাহান্তে বুধবার থেকে রবিবার বিশ্বব্যাপী সিনেমাটি ২৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করবে। এরমধ্যে পাঁচদিনের প্রথম সপ্তাহান্তে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৯০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং আন্তর্জাতিক বক্স অফিসে ১৬০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করতে যাচ্ছে। মঙ্গলবার দুপুর থেকে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে সিনেমাটির প্রিভিউ।

আগেই জানা গিয়েছিলো যে, ‘ডেড রেকনিং’ দিয়ে শেষ হতে যাচ্ছে অন্যতম জনপ্রিয় এবং বাণিজ্যিক সফল ফ্র্যাঞ্চাইজি ‘মিশন ইম্পসিবল’। আর শেষ সংস্করণটি নির্মিত হতে যাচ্ছে দুই পর্বে। চলতি সপ্তাহে মুক্তি পেতে যাচ্ছে ‘ডেড রেকনিং – প্রথম পর্ব’। আর দ্বিতীয় পর্বটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে ২০২৪ সালের ২৮শে জুন। ইতিমধ্যে দ্বিতীয় পর্বের কাজ অনেকটাই শেষ করে এনেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন এর নির্মাতা ক্রিস্টোফার ম্যাককুয়ারি। ‘ডেড রেকনিং’ সিনেমার প্রথম পর্ব মুক্তির পরই এর দ্বিতীয় পর্বের বাকী কাজ শেষ করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এছাড়া ‘ডেড রেকনিং’ সিনেমাটি দুই পর্বের কারণ ব্যখ্যা করে ক্রিস্টোফার ম্যাককুয়ারি বলেন, ‘ফলআউট সিনেমাটি ভালো প্রতিক্রিয়া পাওয়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে একটি গল্পে প্রতিটি চরিত্র এবং আবেগকে একসাথে নিয়ে আসা। এছাড়া আমরা উপলব্ধি করতে পেরেছি যে রগ নেশন-এর সাথে যা হয়েছে সেটি অপ্রত্যাশিত ছিলো। আমি সিনেমাটির তারকদের তালিকা দীর্ঘায়িত করতে চেয়েছি এবং এই প্রতিটি চরিত্রকে আরো বেশী অবদানের সুযোগ দিতে চেয়েছিলাম। আমি জানতাম সিনেমাটি ফলআউট থেকে আরো বড় কিছু হতে যাচ্ছে।‘

উল্লেখ্য যে, টম ক্রুজের ‘মিশনঃ ইম্পসিবল’ ফ্র্যাঞ্ছাইজিটি হলিউডের অন্যতম দর্শক নন্দিত সিরিজগুলোর মধ্যে অন্যতম। এই সিরিজের প্রতিটি সিনেমাই বক্স অফিসে ব্যবসায়িক সাফল্য অর্জন করতে সক্ষম হয়েছিলো। প্রাথমিক ঘোষনা অনুযায়ী সিনেমাটি ২০২১ সালের ২৩শে জুলাই মুক্তি পাওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু করোনা মহামারীর কারনে স্কাইড্যান্স এবং প্যারামাউন্ট পিকচার্স প্রযোজিত সিনেমাটির মুক্তি কয়েকবার পিছিয়ে গেছে। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী জুলাইয়ে মুক্তি পেতে যাচ্ছে চলতি বছরের অন্যতম প্রতীক্ষিত এই সিনেমা।

প্রসঙ্গত, গোয়েন্দা অ্যাকশন গল্পের ‘মিশন ইম্পসিবল – ডেড রেকনিং’ পরিচালনা এবং চিত্রনাট্য রচনা করেছেন ক্রিস্টোফার ম্যাককুয়ারি। টম ক্রুজ অভিনীত ‘মিশন: ইম্পসিবল’ সিরিজের সপ্তম কিস্তি এবং ম্যাককুয়ারি পরিচালিত সিরিজের তৃতীয় কিস্তি হতে যাচ্ছে এই সিনেমা। ‘রগ নেশন’ এবং ‘ফলআউট’র পর তৃতীয়বারের মতো সিরিজের সিনেমা পরিচালনায় ফিরছেন এই নির্মাতা। সিনেমাটির প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন টম ক্রুজ, ভিং রামেস, হেনরি চের্নি, সাইমন পেগ, রেবেকা ফার্গুসন, ভেনেসা কিরবি এবং ফ্রেডেরিক শ্মিড্ট।

আরো পড়ুনঃ
টম ক্রুজের ক্যারিয়ারের সবচেয়ে প্রশংসিত সিনেমা ‘মিশন ইম্পসিবলঃ ডেড রেকনিং’
‘মিশন: ইমপসিবল’ নতুন পর্বে আবারো টম ক্রুজের দুঃসাহসী স্টান্ট
দুই দিন আগে মুক্তি পাচ্ছে ‘মিশন ইম্পসিবল – ডেড রেকনিং’ প্রথম পর্ব!

By নিউজ ডেস্ক

এ সম্পর্কিত

%d bloggers like this: