‘গাদার’ থেকে ‘গাদার ২’: সানি দেওলের ৩৩ সিনেমার মধ্যে মাত্র ২ ব্যবসা সফল

সানি দেওলের ৩৩ সিনেমার

১৯৮৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘বেতাব’ সিনেমার মাধ্যমে বলিউডে অভিষিক্ত হয়েছিলেন সানি দেওল। সিনেমাটির বক্স অফিস সাফল্যের কারনে আর কখনো পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি এই তারকাকে। শুধু তাই নয়, সমসাময়িক সময়ে আরো কয়েকটি বাণিজ্যিক সফল সিনেমার মাধ্যমে  বলিউডের অন্যতম বড় অ্যাকশন তারকা হিসেবে আবির্ভুত হয়েছিলেন সানি দেওল। ১৯৯৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘বর্ডার’ সিনেমাটি বক্স অফিসে ঝড় তুলেছিলো, যার মাধ্যমে ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় হিট সিনেমার পেয়েছিলেন সানি দেওল। এরপর ২০০১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘গাদার – এক প্রেম কথা’ সিনেমার মাধ্যমে আবারো ইতিহাস সৃষ্টি করেছিলেন তিনি।

অনিল শর্মা পরিচালিত ‘গাদার – এক প্রেম কথা’ সিনেমাটি শেষ পর্যন্ত সানি দেওলের ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় অলটাইম ব্লকবাস্টার হিসেবে আবির্ভুত হয়েছিলো। এছাড়া প্রেক্ষাগৃহে দর্শক সমাগমের দিক থেকেও, বলিউডের জন্য একটি মাইলফলক হিসেবে বিবেচিত হয় ‘গাদার – এক প্রেম কথা’। সিনেমাটি মুক্তির ২২ বছর পর অনিল শর্মা নিয়ে আসেন এর দ্বিতীয় পর্ব ‘গাদার ২ – দ্য কথা কন্টিনিউস’। গত ১১ই আগস্ট মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমাটি আরো একবার বক্স অফিসে সুনামি হিসেবে হাজির হয়েছে। মাত্র আট দিনে ভারতীয় বক্স অফিসে ‘গাদার ২ – দ্য কথা কন্টিনিউস’ সিনেমাটির আয় ৩০০ কোটি রুপি ছাড়িয়ে গেছে।

দীর্ঘ ২২ বছর দ্বিতীয় পর্ব দিয়ে আবারো এক ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন সানি দেওল এবং অনিল শর্মা। এক সপ্তাহের মধ্যেই সিনেমাটি বক্স অফিসে আলটাইম ব্লকবাস্টার হিসেবে আবির্ভুত হয়েছে। তাই, এই সিনেমার সাফল্যের দারুণ সময় পার করছেন সানি দেওল। সম্প্রতি সিনেমাটির সাফল্য উদযাপন নিয়ে সংবাদ মাধ্যমের সাথে কথা বলেন সানি দেওল। উক্ত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি তো এতদিন সিনেমায় ছিলাম না, অন্য কেউ কেনো এরকম সিনেমা বানালো না।‘ কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে সানি দেওলের এই মন্তব্য কতটুকু যৌক্তিক? ‘গাদার’ থেকে ‘গাদার ২’ – এই সময়ে সানি দেওলের মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমাগুলোর বক্স অফিস পর্যালচনা করলেই বোঝা যাবে তার কথার অযৌক্তিকতা।

‘গাদার’ থেকে ‘গাদার ২’ – এর সময়ে মুক্তিপাপ্ত সিনেমাগুলোর বক্স অফিস পর্যালোচনা করে দেখা গেছে যে, এই সময়ে সানি দেওলের আর কোন বড় মাপের বাণিজ্যিক সফল সিনেমা নেই। সাধারণ হিট আছে মাত্র দুটি। কিন্তু এই সময়ে সানি দেওল অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা সংখ্যা কত জানেন? ৩৩ টি – হ্যাঁ ‘গাদার’ সিনেমার দুই পর্বের মাঝে এই তারকার মোট ৩৩ টি সিনেমা মুক্তি পেয়েছিলো, যার মধ্যে হিট হয়েছে মাত্র দুটি। আর ‘গাদার ২ – দ্য কথা কন্টিনিউস’ সিনেমাটির আগে সানি দেওল অভিনীত টানা পাঁচটি সিনেমা বক্স অফিসে ডিজাস্টার ছিলো। সর্বশেষ হিট ছিলো ২০১১ সালে মুক্তিপাপ্ত ‘ইয়ামলা পাগলা দিওয়ানা’।

আরো মজার ব্যাপার হচ্ছে ২০১১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ইয়ামলা পাগলা দিওয়ানা’ সিনেমার আগে সানি দেওল অভিনীত সর্বশেষ সফল সিনেমা ছিলো ‘ইন্ডিয়ান’। এই সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছিলো ২০০১ সালে। নতুন শতাব্দীতে ২০০১, ২০১১ এবং ২০২৩ এই তিন বছর বক্স অফিসে সাফল্যের মুখ দেখেছেন এই তারকা। এই সময়ে মুক্তিপ্রাপ্ত বাকী ৩১ টি সিনেমার মধ্যে ২৮ টি সিনেমা ডিজাস্টার অথবা ফ্লপের খাতায় নাম লিখিয়েছে। আর গড়পড়তা ব্যবসা করেছে বাকী তিনটি সিনেমা। ‘গাদার’ থেকে ‘গাদার ২’ – এই সময়ে সানি দেওল অভিনীত সিনেমাগুলোর বক্স অফিস ফলাফল নীচে দেওয়া হলো –

মোট মুক্তি ডিজাস্টার ফ্লপ এভারেজ হিট
৩৩ ১৮ ১০

নব্বইয়ের দশকের জনপ্রিয় তারকাদের মধ্যে এখন পর্যন্ত পাঁচ জন সিনেমায় নিয়মিত অভিনয় করেছেন। শুধু নিয়মিত নয়, এই পাঁচজন সিনেমায় প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন। বক্স অফিস ফলাফল বিবেচনা করলে, সানি দেওল অনেক পিছিয়ে আছেন। চলুন দেখে নেয়া যাক এই ছয় তারকার ক্যারিয়ারের তুলনামূলক চিত্র।

সানি দেওলের ৩৩ সিনেমার

ক্যারিয়ারে ৩টি অলটাইম ব্লকবাস্টার ছাড়া আর তেমন সাফল্য দেখাতে পারেননি সানি দেওল। এমনি বক্স অফিসে সাফল্যের হার বিবেচনা করলেও, সমসাময়িক তারকাদের চেয়ে অনেকটাই পিছিয়ে বলিউডের হি-ম্যান হিসেবে পরিচিত এই তারকা। এছাড়া সানি দেওল, মূলত অ্যাকশন সিনেমা বিশেষ করে দেশপ্রেম ভিত্তিক সিনেমায় সাফল্য দেখাতে সক্ষম হয়েছে। এর বাইরে অন্য ধারায় তার একমাত্র সফল সিনেমা হচ্ছে ‘ইয়ামলা পাগলা দিওয়ানা’ (কমেডি)। যে সময়ে সানি দেওল একের পর এক ডিজাস্টার উপহার দিয়েছেন, যে সময় অন্য তারকারা একের পর পর সুপারহিট আর ব্লকবাস্টার সিনেমা উপহার দিয়েছেন।

২২ বছর পর সিক্যুয়েল দিয়ে সাফল্যের দেখা পেয়ে, পুরো ইন্ডাস্ট্রিকে চ্যলেঞ্জ করাটা অতিরঞ্জিত ছাড়া আর কিছুই নয়। আরেকটা বক্স অফিস সফল সিনেমা উপহার দিতে সানি দেওল কয় বছর নেন এখন সেটিই দেখার বিষয়। তবে অ্যাকশন সিনেমার অভিনেতা হিসেবে সানি দেওল অবশ্যই বলিউডের অন্যতম সেরা। অভিষিক্ত ‘বেতাব’ থেকে শুরু করে ‘ঘায়েল’, ‘ঘাতক’, ‘অর্জুন পণ্ডিত’, ‘ইন্ডিয়ান’, ‘জিত’ ‘জিদ্দি’ এবং ‘বর্ডার’ সিনেমাগুলো তারই ইঙ্গিত বহন করে। ‘গাদার ২’ সিনেমার সাফল্যে আগামীতে এই তারকার অন্যান্য সফল সিনেমার সিক্যুয়েলেরও প্রত্যাশা করতে পারেন দর্শকরা।

আরো পড়ুনঃ
বছরের সবচেয়ে বড় চমক ‘গাদার ২’: প্রথম সপ্তাহে বক্স অফিস সুনামি
ঐতিহাসিক ষষ্ট দিন পার করলো ‘গাদার ২’: ভারতে ৬০০ কোটি রুপি দৃশ্যমান
ভারতীয় বক্স অফিসে ঝড়: আন্তর্জাতিক বাজারে ব্যর্থ ‘গাদার ২’ ও ‘ওএমজি ২’

By নিউজ ডেস্ক

এ সম্পর্কিত

%d