ফিল্মোগ্রাফি বিশ্লেষণঃ অজয় দেবগনের বক্স অফিস মহারাজা হয়ে উঠার যাত্রা

অজয় দেবগনের বক্স অফিস

ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসের অন্যতম প্রশংসিত তারকা অজয় দেবগন। নব্বইয়ের দশকে বলিউডের সিনেমায় অভিনয় শুরুর পর বিগত ৩০ বছর ধরে দর্শকদের বিনোদন দিয়ে আসছেন। বক্স অফিস আয়ের পাশাপাশি বলিউডের ‘ম্যাস মহারাজা’ অজয় দেবগণ অভিনয়ের স্বীকৃতি হিসেবে পেয়েছেন জাতীয় পুরষ্কারও। গত চার দশক সিনেমায় নিয়মিত অভিনয় করে আসছেন এই তারকা। তার সিনেমার ক্যারিয়ার উত্তান পতনের গল্পে ভরা। কিন্তু অভিনেতা হিসেবে অজয় দেবগন দর্শকদের কখনো হতাশ করেননি। ফিল্মীমাইকে বিশেষ ধারাবাহিক ফিল্মোগ্রাফি বিশ্লেষণে আজকে থাকছে বলিউড তারকা অজয় দেবগনের বক্স অফিস মহারাজা হয়ে উঠার গল্প।

নব্বইয়ের দশকে বলিউড সিনেমার দর্শকরা যে পাঁচজন তারকার জন্ম দেখেছিলেন, তাদের মধ্যে একজন অজয় দেবগন। ক্যারিয়ারের ৩০ বছর পর এখন অজয় শুধুই একজন অভিনেতা নন। নিজের জায়গা থেকে ভারতীয় সিনেমাকে যুগান্তকারী কিছু উপহার দেয়ার ক্ষমতা রাখেন এই তারকা। বিগত কয়েক বছরে অভিনেতার পাশাপাশি অজয় দেবগন প্রযোজক এবং পরিচালক হিসেবেও নিজের অবস্থান পাকাপোক্ত করেছেন। পেশাদারিত্ব এবং কাজের প্রতি তার দায়বদ্ধতা, অজয় দেবগনকে ভারতীয় সিনেমার অন্যতম প্রভাবশালী তারকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। ইতিমধ্যে অজয় অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমার সংখ্যা ১০০ টি ছাড়িয়ে গেছে।

অজয় দেবগনের বক্স অফিস

প্রথম সিনেমা থেকেই দর্শক নন্দিত তারকা অজয়
বলিউডে অজয়ের অভিষিক্ত সিনেমা হচ্ছে ‘ফুল অর কাঁটে’। অভিনয় শুরুর আগে তিনি তার বাবা বীরু দেবগনের অনেক সিনেমায় সহকারী হিসেবে কাজ করেছেন। এরপর প্রথম সিনেমাটি সে বছরের অন্যতম বড় হিট হিসেবে আবির্ভুত হয়েছিলো। ‘ফুল অর কাঁটে’ ছাড়াও নব্বইয়ের দশকে অজয়ের বাণিজ্যিক সফল সিনেমাগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘জিগার’, ‘দিলওয়ালে’, ‘বিজয়পথ’, ‘সোহাগ’, ‘জান’, ‘ইশক’, ‘পেয়ার তো হোনা হি থা’, ‘কাচ্চে ধাগে’ এবং ‘হাম দিল দে চুকে সানাম’। এই সিনেমাগুলো তাকে তার প্রজন্মের সবচেয়ে ধারাবাহিক এবং নির্ভরযোগ্য অভিনেতাদের একজন করে তুলেছিলো।

নতুন দশকটা কিছুটা হতাশার
সামগ্রিকভাবে ২০০০-এর দশক অজয়ের জন্য খুব বেশি সুবিধার ছিল না। এ পর্যায়ে, তিনি তার ক্যারিয়ারের সাফল্যের চেয়ে বাণিজ্যিক ব্যর্থতা বেশী দেখেছেন। নব্বইয়ের দশকে যেখানে অজয় দেবগন বক্স অফিস সফল তারকাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন, সেখানে ২০০০ এর দশক সম্পূর্ণ ভিন্ন ছিল। এ সময়ে অজয় দেবগন অভিনীত সিনেমাগুলো বক্স অফিসে বড় মাপের সাফল্য অর্জন করতে সক্ষম হয়নি। ২০০০-এর দশকে অজয়ের মুক্তিপ্রাপ্ত ৪০টি সিনেমার মধ্যে মাত্র চারটি সিনেমা বাণিজ্যিক সাফল্য অর্জন করতে সক্ষম হয়েছিলো। যার মধ্যে আবার তিনটি সিনেয়া হচ্ছে কমেডি গল্পের – ‘মাস্তি’, ‘গোলমাল – ফান আনলিমিটেড’ এবং ‘গোলমাল রিটার্নস’।

বক্স অফিসে বাণিজ্যিক সাফল্য অর্জন করতে ব্যর্থ হলেও, এই দশকে অজয় তার অভিনয়ের জন্য ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছেন। সত্যিকার অর্থে, বাণিজ্যিক সাফল্য না আসলেও বলিউড নির্মাতারা এই দশকে অভিনেতা অজয়কে আবিষ্কার করতে পেরেছিলেন। ‘দ্য লিজেন্ড অফ ভগত সিং’, ‘কোম্পানি’, ‘গঙ্গাজল’, ‘জমিন’, ‘খাকি’, ‘রেইনকোট’, ‘ওমকারা’-এর মতো সিনেমায় অভিনয়ের দারুণভাবে প্রশংসিত হয়েছিলেন অজয় দেবগন। এছাড়া অভিনয়ের স্বীকৃতি হিসেবে জিতেছেন সেরা অভিনেতার জাতীয় পুরষ্কার। অভিষেকের দশকে বক্স অফিসে সাফল্যের পরের বছরই অভিনয়ের জন্য সার্বজনীন প্রশংসা কুঁড়াতে সক্ষম হয়েছিলেন এই তারকা।

দীর্ঘমেয়াদী বাণিজ্যিক সাফল্যের অগ্রযাত্রা
২০১০ এর দশকটি অজয়ের জন্য অনেকটা নব্বইয়ের অনুলিপি ছিলো। এ সময়ে তিনি ভিন্নধর্মী চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে তার দুর্দান্ত বহুমুখিতা প্রমাণ করেছেন। সেই সাথে বক্স অফিস সাফল্যের ধারাবাহিকতাও অনেক ভালো ছিল। এই দশকে অজয় দেবগন উপহার দিয়েছেন ‘রাজনীতি’, ‘ওয়ানস আপন এ টাইম ইন মুম্বাই’, ‘গোলমাল থ্রী’, ‘সিঙ্গাম’, ‘বোল বচ্চন’, ‘সন অফ সর্দার’, ‘সিঙ্গাম রিটার্নস’, ‘গোলমাল এগেইন’, ‘রেইড’ এবং ‘টোটাল ধামাল’ এর মত বাণিজ্যিক সফল সিনেমা। এই প্রতিটি সিনেমাই বক্স অফিসে ম্যাস মহারাজা হিসেবে অজয়ের অবস্থানকে আরো শক্তিশালী করেছে।

নতুন শতাব্দীর দ্বিতীয় দশকটি অজয়ের জন্য আরো একটি কারনে বিশেষ হয়ে আছে। বাণিজ্যিক সাফল্যের পাশাপাশি অজয় দেবগন দীর্ঘমেয়াদী বাণিজ্যিক সাফল্যের জন্য শক্তিশালী ইন্টেলেকচুয়াল প্রপার্টি প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছিলেন। এই সময়ে ‘গোলমাল’ ফ্র্যাঞ্চাইজিকে আরও শক্তিশালী করার পাশাপাশি এই অভিনেতা ‘সিঙ্গাম’ এবং ‘দৃশ্যাম’ এর মত শক্তিশালী আরো দুটি ফ্র্যাঞ্চাইজি প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়েছিলেন। তিনি এমন একজন অভিনেতা, যিনি সর্বজনীন বিষয়বস্তুর গুরুত্ব বোঝেন এবং এমন সিনেমা নির্মানের চেষ্টা করেন যা শিশুদের পাশাপাশি বড়দেরও আকৃষ্ট করার ক্ষমতা রাখে।

অজয় দেবগনের বক্স অফিস

প্রথমবারের মত বছরের সর্বোচ্চ আয়ের সিনেমা
নতুন দশক নিজের সঙ্গে নিয়ে এসেছে নতুন চ্যালেঞ্জ। কিন্তু অজয় দেবগন ভারতীয় সিনেমায় তার অবস্থান আরও মজবুত করেছেন। ‘তানহাজিঃ দ্য আনসাং ওয়ারিয়র’ সিনেমার মাধ্যমে ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মত বছরের সর্বোচ্চ আয়ের সিনেমা উপহার দেন এই তারকা। সিনেমাটি ২০২০ সালে বলিউডের সর্বোচ্চ আয়ের সিনেমা ছিলো। এরপর মহামারীর কারনে সিনেমা মুক্তি অনিয়মিত হয়ে উঠে। তবে মহামারী পরবর্তি সময়ে অজয় ‘সুরিয়াবংশী’, ‘আরআরআর’ এবং ‘গাঙ্গুবাই কাঠিয়াওয়াড়ি’ এর মতো সিনেমায় ছোট কিন্তু আইকনিক চরিত্রে স্মরণীয় অভিনয় করেছেন।

মহামারী পরবর্তি অজয়ের পূর্ন চরিত্রে সিনেমা ‘রানওয়ে ৩৪’ মুক্তি পেয়েছিলো ২০২২ সালে ঈদে। অভিনয়ের পাশাপাশি সিনেমাটি পরিচালনাও করেছেন অজয় দেবগন। প্রেক্ষাগৃহে এই সিনেমাটি মুখ থুবড়ে পরলেও ডিজিটাল প্লাটফর্মে মুক্তির পর এটি দারুণভাবে প্রশংসিত হয়েছিলো। এরপর এই তারকার ‘থ্যাঙ্ক গড’ সিনেমাটিও বক্স অফিসে ব্যার্থ হয়েছিলো। তবে অজয় ‘দৃশ্যাম ২’ সিনেমার মাধ্যমে দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন করেন। সিনেমাটি ভারতীয় বক্স অফিসে ২৫০ কোটি রুপির বেশী আয়ের মাধ্যমে ব্লকবাস্টার হিসেবে আবির্ভুত হয়েছে। তবে অজয়ের সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা ‘ভোলা’ বক্স অফিসে ভালো ব্যবসা করতে ব্যার্থ হয়েছে।

সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত বলিউড বক্স অফিসের ম্যাস মহারাজা অজয় দেবগন অভিনীত বাণিজ্যিক সফল সিনেমা সংখ্যা ২৪টি। এরমধ্যে বক্স অফিসে ব্লকবাস্টার হয়েছে ৫টি সিনেমা এবং সুপারহিট হয়েছে ৬টি সিনেমা। বাকিগুলো হিট হিসেবে আবির্ভুত হয়েছে।

ব্লকবাস্টার সুপারহিট
তানহাজিঃ দ্য আনসাং ওয়ারিয়র দিলওয়ালে
দৃশ্যাম ২ ইশক
গোলমাল থ্রী পেয়ার তো হোন হি থা
গোলমাল এগেইন রাজনীতি
ফুল অর কাঁটে সিঙ্গাম
সিঙ্গাম রিটার্নস

চলতি বছরে অজয় দেবগন অভিনীত আরো একটি সিনেমা মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে। স্পোর্টস গল্পের সিনেমাটির নাম ‘ময়দান’। সম্প্রতি এই সিনেমার ট্রেলার প্রকাশ করেছেন নির্মাতারা। এছাড়া এই তারকার নির্মানাধীন সিনেমার মধ্যে রয়েছে ‘অরো মে কাহান দম থা’ এবং ‘সিঙ্গাম এগেইন’। এরমধ্যে ‘সিঙ্গাম এগেইন’ সিনেমাটি রোহিত শেঠির কপ ইউনিভার্সের অংশ হিসেবে নির্মিত হচ্ছে। এত অজয়ের বিপরীতে প্রথমবারের মত জুটি হয়ে আসছেন দীপিকা পাডুকোন। এছাড়া অজয় ‘গোলমাল ৫’ এবং ‘দৃশ্যাম থ্রী’ সিনেমাগুলোতেও অভিনয়ের কথা রয়েছে।

আরো পড়ুনঃ
বক্স অফিসে ফ্লপের খাতায় নাম লিখালো অজয় দেবগণ অভিনীত ‘ভোলা’
জাহ্নবী কাপুর এবং বরুণ ধাওয়ানের ‘বাওয়াল’ মুক্তির নতুন তারিখ ঘোষণা
শুরু হচ্ছে ‘ইনশাআল্লাহ্‌’: থাকছেন বলিউডের শীর্ষ তারকাদের একজন

By নিউজ ডেস্ক

এ সম্পর্কিত

%d bloggers like this: