মুক্তি পাচ্ছে বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে ব্যয়বহুল সিনেমা ‘এমআর-৯’

ইতিহাসের সবচেয়ে ব্যয়বহুল

বাংলাদেশের একটা প্রজন্মের কাছে কথাসাহিত্যিক কাজী আনোয়ার হোসেনের স্পাই থ্রিলার ‘মাসুদ রানা’ ছিলো স্বপ্নের চরিত্র। সেই চরিত্রটি এবার বইয়ের পাতা থেকে হাজির হচ্ছে রূপালী পর্দায়! সম্প্রতি বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত হলিউড নির্মাতা আসিফ আকবর পরিচালিত ‘এমআর-৯: ডু অর ডাই’ নামের এই সিনেমাটির মুক্তির তারিখ ঘোষণা করেছে এর প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া। সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী, আসছে আগস্টে মুক্তি পাচ্ছে বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে ব্যয়বহুল এই সিনেমাটি।

হলিউড ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যমে ডেডলাইনে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, আগামি ২৫ আগস্ট মুক্তি পাচ্ছে এই সিনেমাটি। বাংলাদেশের পাশাপাশি কানাডা ও আমেরিকায় একযোগে মুক্তি পাচ্ছে ‘এমআর-৯: ডু অর ডাই’। উক্তি প্রতিবেদন অনুসারে, স্বপ্ন স্কেয়ারক্রোর পরিবেশনায় কানাডা ও আমেরিকার ১৫০টি পর্দায় মুক্তি পাচ্ছে সিনেমাটি। এছাড়া সম্প্রতি একটি পোষ্টার প্রকাশের মাধ্যমে বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে ব্যয়বহুল সিনেমা ‘এমআর-৯’-এর মুক্তির তারিখ জানিয়েছে জাজ মাল্টিমিডিয়া।

‘এমআর-৯: ডু অর ডাই’ সিনেমাটি প্রসঙ্গে একটি সংবাদ মাধ্যমের সাথে আলাপকালে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মার্কিন নির্মাতা আসিফ আকবর বলেন, ‘এটি আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং প্রজেক্ট এবং এখান থেকে আমি সবচেয়ে বেশি অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি। আমিসহ অনেকের শৈশবের নায়ককে বড়পর্দায় নিয়ে আসার এই প্রজেক্টে যুক্ত হতে পেরে আমি কৃতজ্ঞ এবং গর্বিত। এই সিনেমাটি আপনাদের (দর্শক) জন্য এবং এটি এখন একটি জাতির জন্য ইতিহাস।’ প্রকাশিত পোষ্টারে শুধুমাত্র মাসুদ রানার চরিত্রে এবিএম সুমনকেই দেখা গেছে।

এদিকে প্রায় দুই মাস আগে প্রকাশ করা হয়েছিলো ‘এমআর-৯’ সিনেমার টিজার। প্রকাশিত সেই টিজারে গল্প সম্পর্কে কোন ধারণা না পাওয়া গেলেও, দেখা গেছে মারকাট অ্যাকশন আর রহস্যের ঝলক। নাম ভুমিকায় বাংলাদেশের অভিনেতা হলেও, সিনেমাটির বাকী সব শিল্পী কুশলীরা বিদেশী। এবিএম সুমন ছাড়া বাংলাদেশের আছেন শুধুমাত্র শহীদুল আলম সাচ্চু। এছাড়া সিনেমাটিতে আরো অভিনয় করেছেন মাইকেল জেই হোয়াইট, সাক্ষী প্রধান, নিকো ফস্টার, ম্যাট পাসমোর, কেলি গ্রেসন, ফ্রাঙ্ক গ্রিলো প্রমুখ।

‘মাসুদ রানা’ সিরিজের ‘ধ্বংস পাহাড়’ উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে স্পাই অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমা ‘এমআর-৯: ডু অর ডাই’। পরিচালক আসিফের সিনেমাটির চিত্রনাট্য লিখেছেন আব্দুল আজিজ ও নাজিম উদ দৌলা। আর এর সংগীত পরিচালনা করেছেন গ্র্যামিজয়ী ভারতীয় সংগীতশিল্পী রিকি কেজ। সদ্য প্রকাশিত সিনেমাটির ফার্স্টলুক পোষ্টার বেশ প্রশংসা কুরাচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এত ঘাড় ঘুরিয়ে তীক্ষ্ণ চাহনি দিয়ে দর্শকের নজর কেড়েছেন এবিএম সুমন। তার এমন রূপ প্রশংসা পাচ্ছে নেটিজনদের কাছ থেকে।

উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ইতিহাসের সবচেয়ে ব্যয়বহুল সিনেমা হতে যাচ্ছে ‘এমআর-৯: ডু অর ডাই’। সিনেমাটির সাথে সংশ্লিষ্টদের সূত্রে জানা গেছে, ৮৩ কোটি টাকার বিশাল বাজেটে নির্মিত হয়েছে এই সিনেমা। বাজেট এবং আয়োজনের দিক থেকে নিঃসন্দেহে ‘এমআর-৯’ বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সিনেমা। বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়ার সঙ্গে সিনেমাটি যৌথভাবে প্রযোজনা করেছে যুক্তরাষ্ট্রের দ্য ফিল্ম পোস্ট, চেজিং বাটারফ্লাইস পিকচারস ও আল ব্রাভো ফিল্মস।

আরো পড়ুনঃ
‘ময়ূরাক্ষী’ সিনেমা নিয়ে আশাবাদী চিত্রনায়িকা ববি হকঃ ফার্স্ট লুক প্রকাশ্যে
আগামী সেপ্টেম্বরে মুক্তি পাচ্ছে দীপংকর দীপনের তারকাবহুল ‘অন্তর্জাল’
নতুন জুটিকে নিয়ে শুরু হলো অপূর্ব রানা পরিচালিত সিনেমা ‘রাইটার’

By নিউজ ডেস্ক

এ সম্পর্কিত

%d