সেন্সর বোর্ড সদস্যদের কাছে প্রশংসিত আরিফিন শুভর ‘ব্ল্যাক ওয়ার’

আরিফিন শুভর ‘ব্ল্যাক ওয়ার’

আগামী ১৩ই জানুয়ারি মুক্তি পেতে যাচ্ছে বহুল আরিফিন শুভ অভিনীত  সানী সানোয়ারের বহুল প্রতীক্ষিত সিনেমা  ‘ব্ল্যাক ওয়ার’। ২০২১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত পুলিশ অ্যাকশন সিনেমা ‘মিশন এক্সট্রিম’ সিনেমার দ্বিতীয় পর্ব ‘ব্ল্যাক ওয়ার’ সম্প্রতি সেন্সর রোর্ড থেকে ছাড়পত্র পেয়েছে। ছাড়পত্র প্রাপ্তির মাধ্যমে নির্ধারিত তারিখে মুক্তিতে আর কোন বাধা নেই। বিনা কর্তনে ছাড়পত্রের পাশাপাশি সেন্সর বোর্ড সদস্যদের কাছে আরিফিন শুভর ‘ব্ল্যাক ওয়ার’ সিনেমাটি প্রশংসিত হয়েছে বলেও জানা গেছে।

আরিফিন শুভর ‘ব্ল্যাক ওয়ার’ সিনেমার ছাড়পত্র প্রাপ্তি প্রসঙ্গে এর প্রযোজক এবং পরিচালক সানী সানোয়ার বলেন, ‘সেন্সর ছাড়পত্র হচ্ছে টেস্ট পরীক্ষার মত, আর মুক্তির পর চূড়ান্ত পরীক্ষা। আমরা খুশি যে চূড়ান্ত পর্বে পরীক্ষা দেয়ার যোগ্যতা অর্জন করেছি। এখন দেখা যাক দর্শকবৃন্দের কাছ থেকে সেই পরীক্ষার রেজাল্টে কী আসে। তবে, আমি আশাবাদী, সীমিত বাজেট আর আমাদের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টায় বানানো দেশীয় চলচ্চিত্র হিসেবে বিবেচনা করে দেখলে ভালো লাগবে।‘

ইতোমধ্যে টিজার ও ট্রেলার দিয়ে দর্শক এবং সমালোচকদের নজর কেড়েছে আরিফিন শুভর ‘ব্ল্যাক ওয়ার’ সিনেমাটি। ‘ব্ল্যাক ওয়ার’ প্রসঙ্গে সানী সানোয়ার আরো বলেন, ‘মিশন এক্সট্রিম করোনার দ্বিতীয় ধাক্কার ঠিক পরে মুক্তি দিয়েছিলাম। তখন বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী সেভাবে বড় আয়োজনের ছবিগুলো মুক্তি পায়নি। ওই সময় যে সাড়া পেয়েছিলাম সেটা আমার প্রত্যাশার তুলনায় কম ছিল। কিন্তু আশা করছি ব্ল্যাক ওয়ার-এ দর্শকের প্রত্যাশা এবং আমাদের প্রত্যাশা দুটোরই প্রতিফলন ঘটবে।‘

এর আগে ২০২১ সালে ডিসেম্বরে মুক্তি পেয়েছিলো আরিফিন শুভর ‘ব্ল্যাক ওয়ার’ সিনেমার প্রথম পর্ব ‘মিশন এক্সট্রিম’। পুলিশের ভয়ানক একটি অভিযান নিয়ে অ্যাকশন থ্রিলার ধর্মী এই সিনেমাটি প্রযোজনা করছে কপ ক্রিয়শন। আর এই সিনেমার দুইটি পর্বই সানী সানোয়ারের সঙ্গে যৌথভাবে পরিচালনা করেছেন ফয়সাল আহমেদ। প্রথম পর্বের গল্পের সাথে জড়িত অনেক কিছুর ‘ব্ল্যাক ওয়ার’ সিনেমায় উত্তর পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন এই নির্মাতা। সিনেমাটিতে আরিফিন শুভর বিপরীতে অভিনয় করেছেন জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী।

‘ঢাকা অ্যাটাক’ এবং ‘মিশন এক্সট্রিম’ সিনেমাগুলোর ধারাবাহিকতায় ‘ব্ল্যাক ওয়ার’ও নির্মিত হয়েছে পুলিশি অভিযানের উপর ভিত্তি করে। পুলিশি অভিযানের গল্প নিয়ে একাধিকবার সিনেমা নির্মাণ প্রসঙ্গে সানী সানোয়ার বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী কপ থ্রিলার গল্পের ছবিগুলো জনপ্রিয়। বাংলাদেশে এ ধরনের গল্পের ছবি তৈরির ক্ষেত্রে ইক্যুপমেন্টের যথেষ্ট অভাব আছে। মিশন এক্সট্রিম-এ যত ধরনের পুলিশি ইক্যুপমেন্ট দেখা গেছে কোনোটিই পুলিশের কাছ থেকে নেওয়া হয়নি। প্রতিটি জিনিসই বিদেশ ও দেশের বিভিন্নপ্রান্ত থেকে সংগ্রহ করেছি।‘

জঙ্গিবাদ দমন ও পুলিশের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের চৌকশ এই কর্মকতা বলেন, ‘এ ধরনের গল্প নিয়ে ছবি করতে হলে গবেষণা করতে হবে, বিষয়ভিত্তিক জ্ঞান থাকতে হবে। পুলিশের সরঞ্জাম ও সাহায্য যে মাস্ট লাগবে ব্যক্তিগতভাবে এটা আমি সমর্থন করি না। উদাহরণ হচ্ছে মিশন এক্সট্রিম এবং ব্ল্যাক ওয়ার। এই দুটো ছবি বানাতে গিয়ে আমি পুলিশের সহযোগিতা নেইনি। দু-একটি দৃশ্যর জন্য খুব সামান্য সহযোগিতা নিয়েছি।‘

পুলিশে কাজ করে অনেক অভিজ্ঞতা থাকায় ব্যক্তিগতভাবে সিনেমা নির্মাণে এসেছেন উল্লেখ করে সানী সানোয়ার আরো বলেন, ‘সিনেমায় আমি পুলিশের গল্পগুলো এন্টারটেইনিংভাবে দর্শকদের কাছে তুলে ধরি। বাংলাদেশ পুলিশ কিংবা সরকারের কোনো উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য নয়, পুরোপুরি ব্যক্তিগত উদ্যোগে এই কাজটি করি। যদি কোনো সময় মনে করি সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজন, তাহলে ব্যক্তিগতভাবে আমি চেয়ে থাকি। কখনও সহযোগিতা পাই, আবার কখনও পাইনা। আমার উদ্দেশ্য একটাই সেটা পরিষ্কার, আমার অভিজ্ঞতা থেকে আমি গুড মুভি নির্মাণ করতে চাই।‘

শুভ এবং ঐশী ছাড়া তারকাবহুল সিনেমাটির অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন তাসকিন রহমান, সাদিয়া নাবিলা, সুমিত সেনগুপ্ত, মিশা সওদাগর, ফজলুর রহমান বাবু, মনোজ প্রামাণিক, শতাব্দী ওয়াদুদ, শহীদুজ্জামান সেলিম, হাসান ইমাম, লায়লা ইমাম, ইরেশ যাকের, মাজনুন মিজান, সুদীপ বিশ্বাস, সৈয়দ আরেফ, খালিদুর রহমান রুমী, ইমরান সওদাগর, খশরু পারভেজ প্রমুখ। সিনেমাটিতে দেখা যাবে শুভর কাঙ্ক্ষিত সেই ‘সিক্স প্যাক’। প্রকাশিত ট্রেলারে সেই ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। বলা বাহুল্য যে, আরিফিন শুভর ‘ব্ল্যাক ওয়ার’ ট্রেলারটি নেটিজেনদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

আরো পড়ুনঃ
এক সপ্তাহ পিছিয়ে আগামী ১৩ জানুয়ারি আসছে আরিফিন শুভর ‘ব্ল্যাক ওয়ার’
নির্মাতার উপর বিরক্ত শাকিব খানঃ ‘প্রেমিক’ সিনেমার কাজ অনিশ্চিত
কর্তন ছাড়াই সেন্সর ছাড়পত্র পেলো শাকিব খানের ‘লিডার আমিই বাংলাদেশ’

By Filmymike BD

এ সম্পর্কিত