‘বাহুবলী’ লেখকের হাত ধরে বড় পর্দায় বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ‘আনন্দমঠ’

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ‘আনন্দমঠ’

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ‘আনন্দমঠ’

বঙ্কিম চন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের কালজয়ী বাংলা উপন্যাস আনন্দমঠের উপর ভিত্তি করে নির্মিত হতে যাচ্ছে বিশাল বাজেটের প্যান ইন্ডিয়া সিনেমা ‘১৭৭০’। সিনেমাটি পরিচালনা করছেন ‘বাহুবলী’ এবং ‘আরআরআর’ খ্যাত নির্মাতা রাজামৌলীর সহকারী অশ্বিন গঙ্গারাজু। সম্প্রতি ভারতের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে একটি মোশন পোষ্টার প্রকাশের মাধ্যমে সিনেমাটির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন নির্মাতারা। আর বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ‘আনন্দমঠ’ থেকে সিনেমা নির্মানের সাথে আছে লেখক-চলচ্চিত্র নির্মাতা রাম কমল মুখার্জি।

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ‘আনন্দমঠ’ উপন্যাস অবলম্বনে সিনেমাটির চিত্রনাট্য রচনা করছেন তেলুগু নির্মাতা এসএস রাজামৌলীর পিতা ভি বিজয়েন্দ্র প্রসাদ। বিজয়েন্দ্র প্রসাদ ভারতীয় সিনেমার অন্যতম সেরা চিত্রনাট্যকার হিসেবে বিবেচিত হয়ে আসছেন। ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসের অন্যতম সেরা এবং সব্বোচ্চ আয়ের সিনেমাগুলো লিখেছেন বিজয়েন্দ্র প্রসাদ। তার রচিত ঐতিহাসিক ব্লকবাস্টার সিনেমাগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘বাহুবলী’ সিরিজ, ‘আরআরআর’, ‘মাঘাধিরা’ এবং ‘বজরঙ্গি ভাইজান’-এর মত সিনেমা।

আলোচিত এই সিনেমাটি প্রসঙ্গে পরিচালক অশ্বিন গঙ্গারাজু বলেন, ‘এই বিষয়টি আমার জন্য একটি বিশাল চ্যালেঞ্জ ছিল। কিন্তু কিংবদন্তি ভি বিজয়েন্দ্র প্রসাদ স্যারের গল্প এবং চিত্রনাট্য লেখার সাথে, আমি মনে করি কাগজে আমাদের যা আছে তা হল একটি ব্লকবাস্টার সিনেমাটিক অভিজ্ঞতা।‘ আনুষ্ঠানিক ঘোষণা উপলক্ষ্যে প্রকাশিত মোশন পোষ্টারে বিজয়েন্দ্র প্রসাদের পাশাপাশি সিনেমাটিতে কমল মুখার্জির সম্পৃক্ততায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন অশ্বিন গঙ্গারাজু।

সিনেমাটি নিয়ে নিজের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে তিনি আরো বলেন, ‘একজন চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসাবে, আমি সেই গল্পগুলির প্রতি আরও বেশি আকৃষ্ট হয়েছি যেগুলোতে সাথে বড় আবেগ, জীবনের চেয়ে বড় অ্যাকশনের সুযোগ রয়েছে। আর এটি এমন একটি বিষয় যা আমার জন্য পুরোপুরি উপযুক্ত৷ প্রথম দিকে আমি একটু সন্দেহপ্রবণ ছিলাম কিন্তু রাম কমল মুখোপাধ্যায় এবং তাঁর দৃষ্টিভঙ্গি শোনার পরে আমি আত্মবিশ্বাস অর্জন করেছি।‘

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ‘আনন্দমঠ’ উপন্যাসের উপর ভিত্তি করে নির্মিতব্য এই সিনেমাটি প্রসঙ্গে বিজয়েন্দ্র প্রসাদ বলেন, ‘আমি অনুভব করি যে বন্দে মাতরম ছিল একটি যাদুকরী শব্দ। এটি এমন একটি মন্ত্র যা একটি জাতিকে অত্যাচার ও অবিচারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার জন্য মহর্ষি বঙ্কিম চন্দ্র দিয়েছিলেন। ১৭৭০ সিনেমায় আমরা এমন অজানা যোদ্ধাদের গল্প নিয়েছিলাম যারা আন্দোলনের মাধ্যমে স্বাধীনতার আগুন জ্বালিয়েছিল।‘

অন্যদিকে আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত লেখক এবং চলচ্চিত্র নির্মাতা রাম কমল মুখার্জি এই সিনেমাটি প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমার দৃষ্টিতে বিশ্বাস রাখার জন্য, আমি আমার প্রযোজকদের কাছে কৃতজ্ঞ। আমি অবিলম্বে একজন চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসাবে অশ্বিনের ভাবনা পছন্দ করেছি। তিনি তার নিজস্ব ধারণা নিয়ে প্রস্তুত হয়ে এসেছিলেন। যা আখ্যানটিকে দৃশ্যমানভাবে উন্নত করেছে। আমি তার আকাশবাণী চলচ্চিত্রটি পছন্দ করেছি এবং গল্পকার হিসেবে তার দক্ষতার প্রশংসা করেছি।‘

লার্জার দ্যান লাইফ সিনেমা নির্মাণের এটাই উপযুক্ত সময় বলে মনে করছেন সিনেমাটির প্রযোজকরা। পিরিয়ড ড্রামা ভিত্তিক এই সিনেমা হিন্দি, তেলেগু, তামিল, মালায়লাম, কন্নড় এবং বাংলা ভাষায় নির্মিত হবে। জানা গেছে আগামী দশেরার আগে সিনেমাটির প্রধান তারকাদের চুক্তিবদ্ধ করবেন এবং দিওয়ালীর মধ্যে তার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করবেন নির্মাতারা। অশ্বিন তার দলের সাথে ইতিমধ্যেই গবেষণা শুরু করেছেন এবং একটি ভিজ্যুয়াল মাস্টারপিস তৈরি করার চেষ্টা প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

প্রসঙ্গত, বহুভাষিক এই সিনেমাটির পরিচালকা অশ্বিন গঙ্গারাজু এর আগে এসএস রাজামৌলির সাথে ‘এগা’ এবং ‘বাহুবলী’ সিরিজে সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন। পরবর্তিতে তিনি পিরিয়ড ড্রামা গল্পের ‘আকাশবাণী’ সিনেমার মাধ্যমে পূর্ন পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। নির্জন উপজাতিরা যখন বনের মধ্যে একটি রেডিও আবিষ্কার করে তখন যে ঘটনাগুলি উদ্ঘাটিত হয় সেটা নিয়ে নির্মিত হয়েছিলো সিনেমাটি। ২০২১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমাটি সমালোচকদের কাছে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছিলো।

আরো পড়ুনঃ
প্যান ইন্ডিয়া মুক্তির লক্ষ্যে বিশাল বাজেটে নির্মিত হচ্ছে ‘লুসিফার’ সিক্যুয়েল
সুপারস্টার ফাহাদ ফাসিল: ব্যর্থতা থেকে তারকা অভিনেতা হয়ে উঠার যাত্রা!
তেলেগু সুপারস্টারদের বিরুদ্ধে বক্স অফিস সংগ্রহে কারসাজির অভিযোগ

By নিউজ ডেস্ক

এ সম্পর্কিত