তারকাদের অতিরিক্ত পারিশ্রমিকই তামিল সিনেমার খারাপ অবস্থা মূল কারন!

তারকাদের অতিরিক্ত পারিশ্রমিকই

একটা সময় ভারতীয় সিনেমার ক্ষেত্রে বলিউডের পরেই ছিলো তামিলের অবস্থান। আর দক্ষিণের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিগুলোর মধ্যে শীর্ষে ছিলো তামিল ইন্ডাস্ট্রি। কিন্তু সময়ের ধারাবাহিকতায় বর্তমানে সেই জায়গা নিয়েছে তেলুগু সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি। শুধু তামিল নয়, বলিউডের চেয়েও এগিয়ে আছে তেলুগু সিনেমাগুলো। প্যান ইন্ডিয়া দুর্দান্ত ব্যবসা করছে তেলুগু সিনেমা। সে তুলনায় তামিল সিনেমা পিছিয়ে আছে অনেকটুকু। সম্প্রতি তারকাদের অতিরিক্ত পারিশ্রমিকই তামিল সিনেমার খারাপ অবস্থা মূল কারন বলে জানিয়েছেন তামিলের বর্শীয়ান নির্মাতারা।

- Advertisement -

তামিল সিনেমার তারকাদের অতিরিক্ত পারিশ্রমিক টলিউডের আলোচ্য বিষয়গুলোর মধ্যে অন্যতম। সিনেমাপ্রতি বিশাল অংকের পারিশ্রমিক নেয়ার কারনে হরহামেশাই এই তারকারা পরছেন সমালোচনায়। তামিলের বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় তিন তারকা অজিত কুমার, থালাপতি বিজয় এবং রজনীকান্ত প্রত্যেকেই সিনেমাপ্রতি ১০০ কোটি রুপি নিয়ে থাকেন বলে গুঞ্জন আছে। তারকাদের অতিরিক্ত পারিশ্রমিকই তামিল সিনেমার খারাপ অবস্থা মূল কারন বলে সম্প্রতি উল্লেখ করেছেন তামিলের একাধিক নির্মাতা!

সম্প্রতি এ প্রসঙ্গে সংবাদ মাধ্যমে সাথে কথা বলে তামিলের প্রবীণ নির্মাতা এবং প্রদর্শক কে রঞ্জন। রজনীকান্ত ‘দরবার’ সিনেমার জন্য ১০০ কোটি পারিশ্রমিক নিয়েছেন বলেই থালাপতি বিজয় এখন প্রতি সিনেমার জন্য ১০০ কোটি দাবি করছেন বলে মন্তব্য করেছেন এই নির্মাতা। থালাপতি বিজয় তার ‘থালাপতি ৬৬’ সিনেমার জন্য ১০০ কোটি রুপি পারিশ্রমিক নিচ্ছেন, যেখানে ‘বিস্ট’ সিনেমার জন্য তিনি নিয়েছিলেন ৮৫+ কোটি রুপি (ট্যাক্স সিনেমাটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সান পিকচার্স বহন করেছিলো।

- Advertisement -

থালাপতি বিজয়ের সিনেমা প্রতি এই পারিশ্রমিক অতিরিক্ত বলে দাবি করেছেন আলোচিত এই নির্মাতা। বিজয়ের সর্বশেষ সিনেমাগুলোর বক্স অফিসে ব্যবসায়িক সাফল্য অর্জন করতে সক্ষম হলেও বিজয়ের এই পারিশ্রমিক দাবীকে অনুচিত বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। এছাড়া সিনেমার জন্য অজিত কুমারের পারিশ্রমিকও বেশী বলে দাবি করেছেন কে রঞ্জন। লাইকা প্রোডাকশন্সের প্রযোজনায় ‘অজিত ৬২’ সিনেমার জন্য ১০৫ কোটি পারিশ্রমিকের কড়া সমালোচনা করেন এই প্রযোজক।

এদিকে তামিল তারকাদের অতিরিক্ত পারিশ্রমিকই তামিল সিনেমার খারাপ অবস্থার জন্য দায়ী বলে মন্তব্য করেছেন প্রবীণ অভিনেতা এবং প্রযোজক অরুণ পান্ডিয়ান। সিনেমাপ্রতি অত্যধিক পারিশ্রমিক নেওয়ার জন্য শীর্ষস্থানীয় তামিল তারকাদের নিন্দা করেছেন অরুন। ‘আধার’ সিনেমার অডিও লঞ্চ অনুষ্ঠানে আলাপচারিতার সময়, অরুণ পান্ডিয়ান যুক্তি দিয়েছিলেন যে তামিল সিনেমার সোনালী যুগ ছিল যখন পরিচালক ভারতিরাজার মতো চলচ্চিত্র নির্মাতারা চলচ্চিত্র তৈরি করেছিলেন।

- Advertisement -

সিনেমায় অতিরিক্ত পারিশ্রমিক নেয়ার কারনে থালাপতি বিজয় এবং অজিত কুমারের সমালোচনা করেন অরুন পান্ডিয়ান। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আজ, তামিল সিনেমার অবস্থা এতটাই খারাপ যে অন্য ভাষার সিনেমা তামিল নাড়ুতে অসাধারণ ব্যবসা করছে। এটা বিজয়ের সিনেমাই হোক কিংবা অজিতের সিনেমা হোক – তারা সিনেমার পিছনে টাকা খরচ করছে না। বিজয় এবং অজিত টাকা খরচ করছে তাদের নিজেদের পিছনে।‘

তিনি আরো বলেন যে, যদি একটি সিনেমার ৯০% বাজেট তারকাদের পারিশ্রমিকের পিছনে খরচ করতে হয় তাহলে স্বাভাবিকভাবেই সিনেমার সার্বিক মান খারাপ হবে। তাদের সময়ে একটি সিনেমার মাত্র ১০% বাজেট তারকাদের পারিশ্রমিকের পিছনে খরচ করা হত বলে জানিয়েছেন অরুন পান্ডিয়ান। তিনি মনে করেন যে বাজেটের বড় অংশ সিনেমার মান উন্নয়নের জন্য খরচ করলেই তামিল সিনেমাগুলোর ভারতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারে।

প্রসঙ্গত, থালাপতি বিজয় অভিনীতকো সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা ‘বিস্ট’ তামিল নাড়ুতে ভালো ব্যবসা করলেও প্যান ইন্ডিয়া বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পরেছিলো। ‘কেজিএফ চ্যাপ্টার ২’ মুক্তির একদিন আগে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘বিস্ট’ সিনেমাটি প্যান ইন্ডিয়া ব্যর্থ হয়েছিলো। অন্যদিকে অজিত কুমার অভিনীত ‘ভালিমাই’ সিনেমাটিও বক্স অফিসে তেমন আয় করতে পারেনি। তামিল নাড়ুতে মোটামুটি আয় করলেও সিনেমাটির হিন্দি সংস্করণ মুখ থুবড়ে পরেছিলো।

আরো পড়ুনঃ
ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে সর্বাধিক পারিশ্রমিক নেন যে অভিনেতারা!
দর্শকদের প্রত্যাশা পূরণ করতে ব্যর্থ মহেশ বাবুর ‘সরকারু ভারি পাতা’!
বলিউডের ভবিষ্যৎ নির্ধারন করবে আসন্ন যে দশটি বিগ বাজেটের সিনেমা!

এ সম্পর্কিত

আরো পড়ুন

- Advertisement -

সর্বশেষ

মুক্তি প্রতীক্ষিত

  • লিডার আমিই বাংলাদেশ
    লিডার আমিই বাংলাদেশ