প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জন্মদিন স্পেশালঃ অভিনয়ের দিক থেকে প্রিয়াঙ্কার সেরা ৫

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জন্মদিন

ইতিমধ্যে বলিউডে নিজের ১৮ বছর পূর্ন করেছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। দেড় বছরের এই ক্যারিয়ারে ব্যবসায়িক সাফল্যের পাশাপাশি উপহার দিয়েছেন অসাধারণ কিছু অভিনয়ের প্রদর্শনি। নিকের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার পর সাম্প্রতিক সময়ে বলিউডে অনেকটাই অনিয়মিত এই তারকা। প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জন্মদিন স্পেশালে আজকে থাকছে এই অভিনেত্রীর অভিনয়ের দিক থেকে তার সেরা ৫টি সিনেমা নিয়ে আলোচনা।

- Advertisement -

১। ফ্যাশন (২০০৮)
প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা অভিনয়ের সিনেমা। চণ্ডীগড়ের একজন সাধারন মেয়ে থেকে একজন সুপার মডেল হওয়ার যাত্রা নিয়ে নির্মিত সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন মাধুর বান্দারকার। সিনেমাটিতে প্রিয়াঙ্কার অভিনীত চরিত্রে যে একধরনের ডার্ক শেড ছিলো সেটা অসাধারনভাবে তুলে ধরেছেন এই অভিনেত্রী। মডেল হওয়ার স্বপ্ন পূরণ করতে নিজের প্রেমিককেও ছেড়ে দিয়ে ছুটে গেছেন সেই স্বপ্নের পিছনে। ২৭টি সিনেমায় অভিনয়ের পর এই সিনেমার প্রস্তাব পেয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। আর সেই সুযোগের সর্বোচ্চ ব্যবহার করে জিতে নিয়েছিলেন জাতীয় পুরষ্কারসহ সে বছরের সব কয়টি পুরষ্কার।

২। হোয়াট ইজ ইয়োর রাশি? (২০০৯)
২০০৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘হোয়াট ইজ ইয়োর রাশি’ সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন আশুতোষ গোয়ারিকর। একজন এনআরআই এর বধূর খোঁজ নিয়ে সিনেমাটির গল্প। সিনেমাটিতে ১২টি ভিন্ন চরিত্রে দেখা গেছে তাকে। প্রত্যেক রাশির জন্য আলাদা আলাদা সাজ এবং ভঙ্গি নিয়ে পর্দায় হাজির হয়েছেন এই অভিনেত্রী। এই প্রতিটি চরিত্রে যে প্রান, আবেগ এবং ভিন্নতার প্রয়োজন ছিলো সেটা প্রিয়াঙ্কা খুব সফলভাবে ফুটিয়ে তুলতে পেরেছেন। বক্স অফিসে সিনেমাটি ব্যর্থ হলেও প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার অভিনয় সর্বমহলে প্রশংসিত হয়েছিলো। একই সিনেমায় এতগুলো চরিত্র ফুটিয়ে তোলা এবং প্রতিটি চরিত্রে সেই ভিন্নতা নিয়ে সাতে পারাটা যেকোন অভিনেত্রীর জন্য চ্যালেঞ্জের ছিলো এবং প্রিয়াঙ্কা সেখানে ছিলেন সফল।

- Advertisement -

৩। বারফি (২০১২)
একজন অটিস্টিক চরিত্রে প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে দেখা গেছে ২০১২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘বারফি’ সিনেমায়। সিনেমাটিতে প্রিয়াঙ্কা অভিনীত চরিত্রের নাম ছিলো ঝিলমিল। ‘বারফি’ মুক্তির আগে ‘অগ্নিপথ’ এবং ‘আনজানা আনজানি’ সিনেমা দুটিতে প্রিয়াঙ্কার অভিনয় সমালোচিত হয়েছিলো। কিন্তু ‘বারফি’ সিনেমার মুক্তির পর আবারো প্রশংসার জোয়ারে ভেসেছেন এই অভিনেত্রী। শুধু তাই নয় ঝিলমিল চরিত্রে প্রিয়াঙ্কার অভিনয়কে অনেকেই ‘সাদমা’ সিনেমায় শ্রীদেবির অভিনয়ের সাথে তুলনা করেছেন। সিনেমার পর্দায় শারীরিক এবং মানসিক অক্ষমতার চিত্র ফুটিয়ে তোলার জন্য এই সিনেমায় প্রিয়াঙ্কার অভিনয় স্মরণীয় হয়ে থাকবে বলিউডে অনেক বছর।

৪। ম্যারি কম (২০১৪)
প্রিয়াঙ্কা চোপড়া অভিনীত আরো একটি শক্তিশালী অভিনয়ের সিনেমা। ভারতের মহিলা বক্সিং চ্যাম্পিয়ন ম্যারি কমের চরিত্রে অভিনয়ের জন্য যে শারীরিক পরিবর্তনের প্রয়োজন ছিলো সেটা প্রিয়াঙ্কা শেষ করেন সিনেমাটিতে কাজ শুরু আগেই। মনিপুরের ছোট একটি গ্রাম থেকে পরিবার এবং সমাজের সবার ধারনার সাথে লড়াই করে একজন বিজয়ী বক্সার হয়ে উঠার কষ্ট দেখা গেছে প্রিয়াঙ্কার প্রতিটি অভিব্যাক্তিতে। সিনেমাটিতে অভিনয়ের জন্য জাতীয় পুরষ্কারে মনোনীত হয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া।

৫। বাজিরাও মাস্তানি (২০১৫)
অভিনেতা এবং অভিনেত্রীদের কাছ থেকে অভিনয়ের সেরাটা বের করে আনার ক্ষেত্রে নির্মাতা সঞ্জয় লীলা বানসালির তুলনা তিনি নিজেই। আর সেই অভিনেত্রী যদি হন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, তাহলে ঝড় দেখতে পাওয়াটা স্বাভাবিক। ২০১৫ সালের ক্রিসমাসে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘বাজিরাও মাস্তানি’ সেই ঘটনারই জলন্ত উদাহরণ। বাজিরাও এর স্থ্রী কাশিবাইয়ের চরিত্রে একজন শক্তিশালী মানসিকতার নারী চরিত্রে দেখা গেছে তাকে। তাইতো বাজিরাও যখন মাস্তানির প্রেমে পরে তিনি নিজেকে ভাগ্যের হাতে সমর্পন না করে রুখে দাঁড়ান এবং প্রতিবাদ করেন। সেই সাথে চরিত্রের সাথে মানিয়ে নিজের আবেগের প্রকাশ সিনেমাটিতে তার অভিনয়কে করছেন অনন্য।

প্রিয় পাঠক, উপরে উল্লেখিত সিনেমাগুলো ছাড়া প্রিয়াঙ্কা চোপড়া অভিনীত আর কোন সিনেমায় তার অভিনয় আপনার ভালো লেগেছে আমাদের জানিয়ে দিন মন্তব্যে। এছাড়া আর কোন তারকার এরকম সেরা অভিনয়ের তালিকা দেখতে চান জানিয়ে দিতে পারেন আমাদের।

আরো পড়ুনঃ
প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার ছেড়ে দেওয়া আলোচিত ১০ টি সিনেমাঃ কারনসহ বিস্তারিত
পুনর্জন্ম এবং বলিউড: পুনর্জন্ম নিয়ে নির্মিত বলিউডের আলোচিত সিনেমা

এ সম্পর্কিত

আরো পড়ুন

- Advertisement -

সর্বশেষ

মুক্তি প্রতীক্ষিত

  • লিডার আমিই বাংলাদেশ
    লিডার আমিই বাংলাদেশ