একাধিক ফ্লপের পর বক্স অফিসে হিট সিনেমার জন্য মরিয়া যে সুপারস্টাররা

হিট সিনেমার জন্য মরিয়া

সুপারস্টার মানেই সিনেমা মুক্তির পর প্রেক্ষাগৃহে দর্শকদের ঢল। নিজেদের পছন্দের তারকাদের বড় পর্দায় দেখার জন্য মুখিয়ে থাকেন ভক্তরা। জনপ্রিয়তা এবং তারকা খ্যাতির কারনে এই সুপারস্টারদের সিনেমার প্রতি নির্মাতা এবং প্রদর্শকদেরও প্রত্যাশা থাকে অনেক বেশী। তবে সব ক্ষেত্রে যে সুপারস্টাররা বক্স অফিসে সফল সিনেমা উপহার দেন ব্যাপারটা মোটেও এমন নয়। বড় তারকাদের নিয়ে নির্মিত অনেক বড় বাজেটের সিনেমা বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পরতে দেখা গেছে বিভিন্ন সময়ে। বিশেষ করে মহামারী পরবর্তি সময়ে ভারতে সিনেমার বক্স অফিসে ঘটনাটি নিয়মিত হয়ে উঠেছে।

- Advertisement -

একজন অভিনেতার তারকা খ্যাতি বা জনপ্রিয়তা বোঝা যায়, মুক্তির শুরুতে প্রেক্ষাগৃহে দর্শক টানতে পারার ক্ষমতা দেখে। অনেক সময় দেখা যায় একটি সিনেমা বক্স অফিসে বাম্পার শুরু করলেও সময়ের সাথে সাথে সিনেমাটি থেকে দর্শক মুখ ফিরিয়ে নেয়। প্রাথমিকভাবে দর্শক টানতে পারাটা সেমন একজন সুপারস্টারের উপর নির্ভর করে, তেমনি সিনেমাটির বক্স অফিস সাফল্য অনেকাংশেই নির্ভর করে সিনেমাটির গল্প এবং চিত্রনাট্যের উপর। এছাড়া বক্স অফিসে টানা ব্যর্থ সিনেমা উপহার দেয়া তারকাদেরে তালিকা নিতান্তই ছোট নয়। একাধিক ফ্লপের পর বক্স অফিসে হিট সিনেমার জন্য মরিয়া সুপারস্টারদের নিয়ে আলোচনা থাকছে এই প্রতিবেদনে।

হিট সিনেমার জন্য মরিয়া

- Advertisement -

০১। প্রভাস
তেলুগু সিনেমার স্বপ্নবাজ নির্মাতা এসএস রাজামৌলী পরিচালিত ‘বাহুবলী’ সিরিজের মাধ্যমে প্যান ইন্ডিয়া সুপারস্টার হিসেবে আবির্ভুত হয়েছিলেন প্রভাস। কিন্তু এরপর প্রভাসের মুক্তিপ্রাপ্ত দুটি সিনেমাই বক্স অফিসে আলোড়ন তুলতে ব্যর্থ হয়েছে। ‘সাহো’ সিনেমাটি প্যান ইন্ডিয়া এভারেজ ব্যবসা করলেও এই তারকার সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত ‘রাধে শ্যাম’ ভারতীয় সিনেমার ইতিহসের অন্যতম বড় ডিজাস্টার হিসেবে আবির্ভুত হয়েছে। বর্তমানে প্রভাস অভিনীত বেশ কয়েকটি সিনেমা নির্মানাধীন রয়েছে। সিনেমাগুলো হচ্ছে ‘আদি পুরুষ’, ‘সালার’, ‘প্রোজেক্ট কে’, ‘স্পিরিট’ এবং নির্মাতা মারুথির নাম ঠিক না হওয়া একটি সিনেমা। ‘আদি পুরুষ’ সিনেমাটি আগামী বছরের জানুয়ারিতে মুক্তি পেতে যাচ্ছে।

হিট সিনেমার জন্য মরিয়া

- Advertisement -

০২। অক্ষয় কুমার
মহামারী শুরু আগে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বলিউড বক্স অফিসের অন্যতম সফল সুপারস্টার হিসেবে আবির্ভুত হয়েছিলেন অক্ষয় কুমার। এই সময়ে অক্ষয় কুমারের বেশ কয়েকটি সিনেমা বক্স অফিসে ভালো ব্যবসা করতে সক্ষম হয়েছিলো। তবে বর্তমানে অক্ষয় কুমার তার ক্যারিয়ারের অন্যতম খারাপ সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন। চলতি বছরে মুক্তিপ্রাপ্ত অক্ষয় কুমার অভিনীত ‘বচ্চন পাণ্ডে’, ‘সম্রাট পৃথ্বীরাজ’ এবং ‘রক্ষা বন্ধন’ সিনেমাগুলো বক্স অফিসে ডিজাস্টার হয়েছে। আগামী দিওয়ালীতে মুক্তি পাচ্ছে এই তারকার ‘রাম সেতু’ সিনেমাটি। এই সিনেমার মাধ্যমে বক্স অফিসে আবারো নিজের গ্রহণযোগ্যতা প্রমাণ করার চেষ্টা করবেন তিনি।

০৩। আমির খান
২০০৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘গজনী’ সিনেমার পর বক্স অফিস রেকর্ডের সাথে নিজের নামকে সমার্থক বানিয়ে ফেলেছিলেন বলিউড সুপারস্টার আমির খান। ভারতীয় বক্স অফিসে ১০০, ২০০ এবং ৩০০ কোটি আয়ের মাইলফলকের রূপকার আমির খান। এছাড়া এই তারকার ‘দাঙ্গাল’ সিনেমাটি বিশ্বব্যাপী বস অফিসে আয় করা ভারতীয় সিনেমার তালিকায় এখনো প্রথমস্থানে রয়েছে। তবে আমির খান অভিনীত সর্বশেষ দুটি সিনেমা ‘থাগ অফ হিন্দুস্থান’ এবং ‘লাল সিং চাড্ডা’ বক্স অফিসে ব্যর্থ হয়েছে। যদিও আমির খানের পরবর্তি সিনেমা নিয়ে কোন ঘোষণা এখনো পাওয়া যায়নি, এই তারকার পরের সিনেমাটি বক্স অফিসে হিট হওয়া খুবই জুরুরি হয়ে উঠেছে।

০৪। রনবির কাপুর
সাম্প্রতিক বছরগুলোতে রনবির কাপুরের মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমাগুলোর মধ্যে ‘সাঞ্জু’ ছাড়া আর কোন সিনেমাই বক্স অফিসে সাফল্য অর্জন করতে পারেনি। রাজকুমার হিরানি পরিচালিত এই সিনেমাটি ব্লকবাস্টার ব্যবসা করলেও, বাকী সিনেমাগুলো ফ্লপের খাতায় নাম লিখিয়েছে। সর্বশেষ এই তারকার ‘শমশেরা’ সিনেমাটি বক্স অফিসে ডিজাস্টার হয়েছে। বড় বাজেটের তারকাবহুল এই সিনেমাটি নিয়ে সবার প্রত্যাশা ছিলো অনেক। রনবির কাপুর অভিনীত ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ সিনেমাটি বর্তমানে মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। বিশাল বাজেটের এই সিনেমাটি আগামী ৯ই সেপ্টেম্বর মুক্তিয়া পেতে যাচ্ছে।

হিট সিনেমার জন্য মরিয়া

০৫। কঙ্গনা রানাউত
সাম্প্রতিক সময়ে ‘জাজমেন্টাল হ্যায় কেয়া’, ‘পাঙ্গা’, ‘থালাইভি’ এবং ‘ধাকড়’ সিনেমাগুলোর মাধ্যমে টানা চারটি ফ্লপের মুখোমুখি হয়েছেন কঙ্গনা রানাউত। এর মধ্যে ৮০ কোটি রুপি বাজেটে নির্মিত ‘ধাকড়’ সিনেমাটি বক্স অফিসে ৫ কোটি রুপিও আয় করতে সক্ষম হয়নি। বিষয়বস্তু অনুসারে তার সিনেমাগুলো কিছুটা প্রশংসিত হলেও বক্স অফিসে ছাপ ফেলতে ব্যর্থ হয়েছে। বর্তমানে কঙ্গনা রানাউত অভিনীত ‘তেজাস’ সিনেমাটি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। আশা করা যাচ্ছে যে ‘তেজাস’ সিনেমাটি প্রেক্ষাগৃহের টিকিটের জানালায় দর্শকদের লম্বা সারি ফিরিয়ে আনবে।

হিট সিনেমার জন্য মরিয়া

০৬। শাহরুখ খান
২০১৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘চেন্নাই এক্সপ্রেস’ সিনেমার পর থেকেই বক্স অফিসে শাহরুখ খানের সময়টা মোটেও ভালো যাচ্ছে না। শাহরুখ খান অভিনীত সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত সবগুলো সিনেমাই বক্স অফিসে ব্যর্থ হয়েছে। ‘রইস’ সিনেমাটি সেমি হিট হলেও ‘ফ্যান’, ‘জাব হ্যারি মেট সেজাল’ এবং ‘জিরো’ সিনেমাগুলো বক্স অফিসে ফল্প হিসেবে আবির্ভুত হয়েছে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে ‘জিরো’ সিনেমার ব্যর্থতার পর সাময়িক বিরতি নেন এই তারকা। তবে চার বছর পর আগামী বছর শাহরুখ খান ফিরছেন বিশাল ধামাকা নিয়ে। ২০২৩ সালে শাহরুখ খান অভিনীত তিনটি সিনেমা মুক্তি পেতে যাচ্ছে। ‘পাঠান’, ‘জওয়ান’ এবং ‘ডানকি’ নামের এই সিনেমাগুলো ইতিমধ্যে দর্শকদের মাঝে ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছে।

প্রিয় পাঠক, উপরে উল্লেখিত তারকাদের মধ্যে কোন তারকার বক্স অফিসে হিট দিয়ে ফিরে আসার ব্যাপারে আপনি সবচেয়ে বেশী আত্মবিশ্বাসী। এছাড়া এই তারকাদের মুক্তি প্রতীক্ষিত এই সিনেমাগুলোর মধ্যে কোন সিনেমাটি নিয়ে আপনি বেশী আশাবাদী তা জানিয়ে দিন মন্তব্যে। উপরে আলোচিত তারকারা ছাড়া আর কোন তারকা এই তালিকায় থাকা উচিৎ বলে মনে করছেন সেটাও জানিয়ে দিতে পারেন মন্তব্যে।

আরো পড়ুনঃ
বক্স অফিস কাঁপাতে আসছে ৩০০ কোটি রুপি বাজেটের পাঁচটি সিনেমা
২০২২ সালের প্রথমার্ধ পর্যন্ত বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পরা ১০টি তেলুগু সিনেমা
‘বিক্রম’ থেকে ‘মহান’: ২০২২ সালের প্রথমার্ধ পর্যন্ত তামিল ব্লকবাস্টার যত সিনেমা

এ সম্পর্কিত

আরো পড়ুন

- Advertisement -
- Advertisement -

সর্বশেষ

মুক্তি প্রতীক্ষিত

  • লিডার আমিই বাংলাদেশ
    লিডার আমিই বাংলাদেশ