বলিউডের সিনেমার সিক্যুয়েল: মূল সিনেমাকে ধ্বংস করেছে যে ফ্রাঞ্চাইজিগুলো!

বলিউডের সিনেমার সিক্যুয়েল

আমাদের পছন্দের একটি সিনেমা বা চরিত্রের ব্যাপারে গভীরভাবে কিছু জানতে আমরা সবসময়ই চাই। অনেক ক্ষেত্রে একটি সিনেমার গল্প এবং চরিত্রকে দর্শকদের কাছে আরো ভালোভাবে উপস্থাপন করতে নির্মান করা হয়ে থাকে সিনেমাগুলোর সিক্যুয়েল বা প্রিক্যুয়েল। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় একটি সিনেমা বক্স অফিসে সাফাল হলেই নির্মাতারা সিনেমাটির সিক্যুয়েল নির্মানের জন্য ঝাঁপিয়ে পরেন। বলিউডেও এরকম সিক্যুয়েল নির্মান করতে দেখা গেছে, যা আগের পর্বটির সাথে কোন যৌক্তিক যোগসূত্র ছাড়াই নির্মিত হয়েছে। বলিউডের সিনেমার সিক্যুয়েল নিয়ে এই আলোচনায় আজ এমন কিছু ফ্র্যাঞ্চাইজি নিয়ে কথা বলবো যা মূল সিনেমার সুনাম ধ্বংস করেছে।

১। রেস ৩
আব্বাস-মাস্তান পরিচালিত ‘রেস’ সিনেমাটি বলিউডের অ্যাকশন থ্রিলার ধারার অন্যতম আলোচিত সিনেমা। সাইফ আলী খান, অক্ষয় খান্না, ক্যাটরিনা কাইফ এবং বিপাশা বাসুকে নিয়ে নির্মিত সিনেমাটি বক্স অফিসে ব্যবসায়িক সাফল্য পেতে সক্ষম হয়েছিলো। এরপর সিনেমাটির দ্বিতীয় পর্ব ‘রেস ২’ একইভাবে বক্স অফিসে ঝড় তুলেছিলো। দ্বিতীয় পর্বে অভিনয় করেছেন সাইফ আলী খান, দীপিকা পাডুকোন, জন আব্রাহাম এবং জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ। কিন্তু তৃতীয় পর্বে নির্মাতারা বেছে নেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খানকে আর পরিচালক হিসেবে আসেন রেমো ডি’সুজা। সালমান খানের অন্তর্ভূক্তিতে সিনেমাটি নিয়ে সবার প্রত্যাশা অনেক বেড়ে যায়। কিন্তু মুক্তির পর সিনেমাটি বক্স অফিসে ব্যর্থ হওয়ার পাশাপাশি সমালোচকদের কাছেও গ্রহণযোগ্যতা পেতে ব্যর্থ হয়েছিলো।

২। দাবাং ৩
২০১০ সালে ‘দাবাং’ সিনেমার মাধ্যমে বলিউডে নতুন করে স্টারডাম ফিরে পেয়েছিলেন সালমান খান। সিনেমাটি বক্স অফিসে ঝড় তুলতে সক্ষম হয়েছিলো। এরপর ‘দাবাং’ সিনেমাটির সাফল্যে অনুপ্রাণিত হয়ে আরবাজ খান নির্মান করেছিলেন ‘দাবাং ২’। প্রথম সিনেমাটির মত দর্শকপ্রিয়তা না পেলেও বক্স অফিসে ১৫০ কোটি রুপি আয়ের মাধ্যমে ব্লকবাস্টার হয়েছিলো সিনেমাটি। কিন্তু ২০১৯ সালে ডিসেম্বরে মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমাটির তৃতীয় পর্ব ‘দাবাং ৩’ দর্শক এবং সমালোচক সবার কাছেই প্রত্যাখ্যাত হয়েছিলো। প্রভু দেবা পরিচালিত সিনেমাটিতে অভিনয়ের জন্য সমালোচনারও শিকার হয়েছিলেন সালমান খান।

৩। ইয়ালমা পাগলা দিওয়ানা ২ এবং ৩
ধর্মেন্দ্র দেওল, সানি দেওল এবং ববি দেওল অভিনীত ‘ইয়ালমা পাগলা দিওয়ানা’ সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছিলো ২০১১ সালে। সিনেমাটির বক্স অফিস সাফল্যের পর নির্মাতারা ঘোষনা দিয়েছিলেন ‘ইয়ালমা পাগলা দিওয়ানা ২’ যা মুক্তি পেয়েছিলো ২০১৩ জুন মাসে। সিনেমাটি দর্শক এবং সমালোচকদের কাছ থেকে নেগেটিভ রিভিউ পায় এবং বক্স অফিসে ব্যর্থ হয়। অবশ্য নির্মাতারা তারপরও থেমে থাকেননি। ২০১৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ইয়ালমা পাগলা দিওয়ানা ৩’ সিনেমাটি আগের পর্বের চেয়েও বাজে রিভিউ নিয়ে বক্স অফিসে ডিজাস্টার হয়েছিলো।

৪। ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন মুম্বাই দোবারা
অজয় দেবগন, ইমরান হাশমি, কঙ্গনা রানাউত, প্রাচি দেশাই এবং রণদীপ হুদা অভিনীত ‘ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন মুম্বাই’ সিনেমাটি গ্যাংস্টার ভিত্তিক সিনেমাগুলোর মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় সিনেমা। মুক্তির পর বক্স অফিসে ভালো ব্যবসার পর নির্মাতারা সিনেমাটির দ্বিতীয় পর্ব মুক্তি দেন ২০১৩ সালে। অক্ষয় কুমার, ইমরান খান এবং সোনাক্সি সিনহাকে নিয়ে নির্মিত এই সিনেমাটি বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পরে। এছাড়া অসংগতিপূর্ন গল্প আর চিত্রনাট্যের কারনে সমালোচনার মুখে পড়েছিলো সিক্যুয়েলটি।

৫। রাজ ৩
বলিউডের হরর ঘরনার অন্যতম জনপ্রিয় সিনেমা রাজ মুক্তি পেয়েছিলো ২০০২ সালে। স্বল্প বাজেটে নির্মিত সিনেমাটি বক্স অফিসে ভালো ব্যবসা করতে সক্ষম হয়েছিল। এরপর সিনেমাটিকে ফ্র্যাঞ্চাইজি হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেন নির্মাতারা। ফলশ্রুতিতে নির্মিত হয় এই ফ্র্যাঞ্চাইজির দ্বিতীয় সিনেমা ‘রাজ ২’ যা বক্স অফিসে ভালো ব্যবসা করতে সক্ষমও হয়। কিন্তু সিনেমাটির তৃতীয় পর্ব ‘রাজ ৩’ বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পরার পাশাপাশি এই ফ্র্যাঞ্চাইজির সুনামও ক্ষুন্ন করেছিলো বাজে ভাবে। ‘রাজ ৩’ সিনেমার প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইমরান হাশমি এবং এশা গুপ্তা।

৬। ওয়েলকাম ব্যাক
২০০৭ সালের ক্রিসমাসে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ওয়েলকাম’ সিনেমাটি বলিউডে কমেডি সিনেমাগুলোর মধ্য অন্যতম জনপ্রিয় সিনেমা। আনিজ বাজমি পরিচালিত সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন নানা পাটেকার, অনিল কাপুর, অক্ষয় কুমার এবং ক্যাটরিনা কাইফ সহ আরো অনেকে। এরপর একই নির্মাতা নাসিরুদ্দিন শাহ, নানা পাটেকার, অনিল কাপুর, জন আব্রাহাম এবং শ্রুতি হাসানকে নিয়ে নির্মান করে সিক্যুয়েল ‘ওয়েলকাম ব্যাক’। সিনেমাটি আগের পর্বের সুনাম নষ্ট করে বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়েছিলো। সম্প্রতি সিনেমাটির তৃতীয় পর্ব নির্মানের কথাও শোনা যাচ্ছে।

৭। রাগিনী এমএমএস ২
পবন কৃপালানি পরিচালিত হরর সিনেমা ‘রাগিনী এমএমএস’ মুক্তি পেয়েছিলো ২০১১ সালে। সিনেমাটি বক্স অফিসে সফলতার পাশাপাশি সমালোচকদেরও প্রশংসা কুঁড়াতে সক্ষম হয়েছিলো। এরপর ২০১৪ সালে নির্মাতা ভূষণ প্যাটেল নির্মান করেন সিনেমাটির সিক্যুয়েল ‘রাগিনী এমএমএস ২’। সানি লিওনিকে নিয়ে নির্মিত সিনেমাটি নগ্নতার কারনে সমালোচিত হয়েছিলো। এছাড়া আলোচনায় থাকা স্বত্বেও সিনেমাটি বক্স অফিসে ব্যর্থ হয়েছিলো।

৮। বান্টি অর বাবলি ২
২০০৫ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সুপারহিট কমেডি ‘বান্টি অর বাবলি’ সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন অভিষেক বচ্চন, রানী মুখার্জি এবং অমিতাভ বচ্চন। সিনেমাটিতে অভিষেক বচ্চন এবং রানী মুখার্জির রসায়ন লুফে নিয়েছিলো দর্শক। সেই সাথে দুর্দান্ত গল্প এবং চিত্রনাট্যের কারনে বক্স অফিসে সুপারহিট ব্যবসা করেছিলো সিনেমাটি। এদিকে গত বছরের শেষে মুক্তি পেয়েছিলো সিনেমাটির দ্বিতীয় পর্ব ‘বান্টি অর বাবলি ২’। নতুন গল্প এবং প্রেক্ষাপটে নির্মিত সিনেমাটি দর্শক টানতে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছিলো।

৯। ভেজা ফ্রাই ২
সাগর বলরী পরিচালিত ‘ভেজা ফ্রাই’ সিনেমাটি বলিউডের ক্ল্যাসিক কমেডি সিনেমাগুলোর মধ্যে অন্যতম। ২০০৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমাটি দর্শক এবং সমালোচকদের কাছে ব্যপকভাবে প্রশংসিত হয়েছিলো। সিনেমাটির সাফল্যে অনুপ্রাণিত হয়ে নির্মাতারা ২০১১ সালে মুক্তি দিয়েছিলেন সিনেমাটির সিক্যুয়েল ‘ভেজা ফ্রাই ২’। কিন্তু প্রথম পর্বের নামের প্রতি মোটেও সুবিচার করতে পারেনি ‘ভেজা ফ্রাই ২’। বক্স অফিসে ব্যর্থতার পাশাপাশি সমালোচকদের তীক্ষ্ণ সমালোচনায়ও বিদ্ধ হয়েছিলো এই সিনেমা।

১০। সত্যমেব জয়তে ২
২০১৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘সত্যমেব জয়তে’ সিনেমাটির প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন জন আব্রাহাম এবং মনোজ বাজপায়ি। সিনেমাটি বক্স অফিসে মুটোমুটি ভালো ব্যবসা করতে সক্ষম হয়েছিলো। মিলাপ জাভেরি পরিচালিত সিনেমাটির সিক্যুয়েল মুক্তি পেয়েছিলো ২০২১ সালের ডিসেম্বরে। কিন্তু সিনেমাটি বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পরে। এছাড়া সিনেমাটিতে জন আব্রাহামের অভিনয় এবং দূর্বল গল্প এবং চিত্রনাট্যের কারনে সমালোচনার মুখে পড়েছিলো এই সিনেমা।

বলিউডের সিনেমার সিক্যুয়েল নির্মানের ক্ষেত্রে বেশীরভাগ ক্ষেত্রে মূল সিনেমাটির গল্প এবং চিত্রনাট্যের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে দেখা যায়না। তবে কিছু ক্ষেত্রে বলিউডের সিনেমার সিক্যুয়েল আগের পর্বকেও ছাড়িয়ে যেতে দেখা গেছে। বর্তমানে বলিউডের অন্যতম শক্তিশালী ফ্র্যাঞ্ছিজির মধ্যে রয়েছে ‘ধুম’, ‘ডন’, ‘টাইগার’, ‘গোলমাল’, ‘সিংঘাম’ ইত্যাদি। সামনের দিনগুলোতে বলিউডে আরো শক্তিশালী কিছু ফ্র্যাঞ্ছাইজি তৈরি হবে বলে আশা করছি।

আরো পড়ুনঃ
ভারতীয় সিনেমায় পুরুষতন্ত্রের নিয়ম ভঙ্গকারী দশটি নারী কেন্দ্রিক সিনেমা
বিশাল বাজেটের নির্মিতব্য ভারতীয় সিনেমাঃ শত কোটি রুপির ঝুঁকিতে নির্মাতারা

হোসেন মৌলুদ তেজোhttps://iammoulude.com/
হোসেন মৌলুদ তেজো একজন নিয়মিত ব্লগার যিনি সিনেমা নিয়ে লিখতে ভালোবাসেন। সিনেমার পাশাপাশি কবিতা, ছোট গল্প, সমসাময়িক এবং ব্যবসা সম্পর্কিত বিষয়েও লিখে থাকেন। প্রফেশনালী একটি বেসকারী আর্থিক প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন। ব্যক্তি জীবনে তিনি বই পড়ে, সিনেমা দেখে এবং তার একমাত্র ছেলের সাথে সময় কাটাতে পছন্দ করেন।

এ সম্পর্কিত

আরো পড়ুন

- Advertisement -

সর্বশেষ

মুক্তি প্রতীক্ষিত

  • লিডার আমিই বাংলাদেশ
    লিডার আমিই বাংলাদেশ