বলিউডে বাংলাদেশি তারকা: বলিউডের সিনেমায় বাংলাদেশি যত তারকা

বলিউডে বাংলাদেশি তারকা

২০১৫ সালে বাংলাদেশি মডেল-অভিনেত্রী নুসরাত ফারিয়ার বলিউড অভিষেকের খবরে তোলপাড় শুরু হয়ে যায দেশে। বলিউডের ‘গাওয়াহ: দ্য উইটনেস’ সিনেমার একটি চরিত্রে নুসরাত ফারিয়াকে প্রাথমিকভাবে বাছাইয়ের ঘোষণা দেন সিনেমাটির নির্মাতারা। বিষ্ণু দত্ত পরিচালিত সিনেমাটিতে মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইমরান হাশমি, নওয়াজ উদ্দিন এবং পায়েল সরকার। অবশ্য পরে সিনেমাটিতে নুসরাত ফারিয়ার অভিনয়ের আর কোনো খবর পাওয়া না গেলেও, বলিউডে বাংলাদেশি তারকা হিসেবে অভিনয়ের সেই এক খবরেই বাংলা সিনেমায় বেশ জাঁকিয়ে বসেছেন নুসরাত ফারিয়া।

- Advertisement -

তবে বলিউডে বাংলাদেশি তারকা – বিষয়টি নিয়মিত না হলেও নতুন কিছু নয়। এর আগেও বাংলাদেশি তারকারা বলিউডে কাজ করেছেন, এবং রীতিমতো কেন্দ্রীয় চরিত্রেই অভিনয় করেছেন। সে সব ছবি বক্স অফিসে আলোচিত হয়েছে। সে তালিকায় ববিতা-শাবানা থেকে শুরু করে রিয়াজ-ফেরদৌস হয়ে বর্তমান সময়ের নিরব পর্যন্ত। এমনকি একটি সিনেমায় পরিচালনাতেও ছিলেন একজন বাংলাদেশি। বেশ কয়েকটি সিনেমার প্রযোজনাও করেছে বাংলাদেশি প্রযোজনা সংস্থা। বলিউডে বাংলাদেশি তারকা এবং তাদের সিনেমা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা থাকছে আজকের এই প্রতিবেদনে।

১। ববিতা (গেহরি চোট)
১৯৮৩ সালে মুক্তি পাওয়া সিনেমাটি ছিল একাধারে ভারত, বাংলাদেশ ও কানাডার যৌথ-প্রযোজনা। সিনেমাটির প্রযোজনা করেছিল কানাডা ভিত্তিক ফ্রেন্ডস ফিল্মস এবং বাংলাদেশের এহতেশাম প্রোডাকশন। সিনেমাটির পরিচালনায়ও ছিলেন ভারত-বাংলাদেশের দুইজন গুণী নির্মাতা – ভারতের অম্ব্রিশ সান্যাল এবং বাংলাদেশের এহতেশাম। থ্রিলার ঘরানার সিনেমাটির শুটিং হয়েছিল কানাডার টরন্টোতে। মূল চরিত্রগুলোতে অভিনয় করেছিলেন ভারতের শশী কাপুর, শর্মিলা ঠাকুর, রাজ বাবর, পারভীন ববি, ডেভিড আব্রাহাম, বাংলাদেশের ববিতা এবং ভারতের নাদিম বেগ। সিনেমাটিতে অভিনয়ের কিছুদিন পরেই ডেভিড আব্রাহাম মারা যান। ভারতে ‘গেহরি চোট’ নামে মুক্তি পাওয়া সিনেমাটি বাংলাদেশে মুক্তি পায় ‘দূরদেশ’ নামে।

- Advertisement -

২। রোজিনা (আর পার)
১৯৮৫ সালে মুক্তি পাওয়া বলিউডের ‘আর পার’ সিনেমাটিও ভারত-বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত। শক্তি সামন্ত পরিচালিত অ্যাকশন ঘরানার এই সিনেমাটিতে দেখা গেছে দুই দেশের অভিনয় শিল্পীদের। কেন্দ্রীয় চরিত্রে মিঠুন চক্রবর্তীর বিপরীতে অভিনয় করেন রোজিনা। অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন ভারতের রাজেশ খান্না, মন্দাকিনী, উৎপল দত্ত, মানিক দত্ত, তরুণ ঘোষ, অসিত কুমার সেন এবং বাংলাদেশের সুমিতা দেবী, গোলাম মোস্তফা, সৈয়দ হাসান ইমাম, এটিএম শামসুজ্জামান, আহমেদ শরীফ, অমল বোস প্রমুখ। সিনেমাটি পরে অন্যায় অবিচার নামে বাংলায়ও মুক্তি দেয়া হয়। সিনেমাটির সঙ্গীত পরিচালনা করেন আর ডি বর্মণ।

৩। শাবানা (শত্রু)
১৯৮৬ সালেই আবারও বলিউডে মুক্তি পায় ভারত-বাংলাদেশ যৌথ-প্রযোজনার সিনেমা। মূলত ১৯৮৪ সালের টালিগঞ্জের রঞ্জিত মল্লিক অভিনীত ‘শত্রু’ সিনেমাটিই একই নামে রিমেক করা হয়। প্রমোদ চক্রবর্তী পরিচালিত অ্যাকশন-থ্রিলার ঘরানার সিনেমাটিতে ভারতের রাজেশ খান্নার বিপরীতে অভিনয় করেন বাংলাদেশের শাবানা। এছাড়াও অভিনয় করেন গোলাম মোস্তফা এবং সৈয়দ হাসান ইমাম। আর ডি বর্মণের সঙ্গীত পরিচালনায় লতা মুঙ্গেশকর, আশা ভোঁসলের পাশাপাশি কণ্ঠ দেন অ্যান্ড্রু কিশোর। ছবিটি ব্যবসাও বেশ ভালো করে। ব্ক্স অফিস থেকে তুলে আনে ১ কোটি ৭০ লাখ রুপি।

- Advertisement -

৪। ফেরদৌস (মিট্টি)
২০০১ সালে ইকবাল দুররানির কাহিনি, চিত্রনাট্য ও পরিচালনায় মুক্তি পায় ‘মিট্টি’। হিন্দি ক্রাইম-থ্রিলার ঘরানার সিনেমাটিতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন বাংলাদেশের ফেরদৌস। অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করেন শর্বানি মুখার্জি, রানি রাজকুমার, আরিফ জাকারিয়া, কূলভূষণ খরবন্দ, বিশাল রেড্ডি প্রমুখ। সিনেমাটি বক্স অফিসে তেমন সুবিধা করতে না পারলেও, দর্শক-সমালোচকদের প্রশংসা ঠিকই কুড়াতে সক্ষম হয়।

৫। রিয়াজ (ইট ওয়াজ রেইনিং দ্যাট নাইট)
বাংলা সিনেমার অন্যতম জনপ্রিয় রোম্যান্টিক তারকা রিয়াজ অভিনীত বলিউড সিনেমা নাম ‘ইট ওয়াজ রেইনিং দ্যাট নাইট’। ভারত ও আমেরিকার যৌথ প্রযোজনার সিনেমাটি একই সাথে ইংরেজি ও বাংলায় মুক্তি পায় ২০০৫ সালে। মহেশ মাঞ্জরেকারের পরিচালনায় সিনেমাটিতে বাংলাদেশের রিয়াজ অভিনয় করেন সুস্মিতা সেনের বিপরীতে। সিনেমাটিতে অন্যান্যদের মধ্যে অভিনয় করেন ভারতের রিয়া সেন, ভিক্টর ব্যানার্জি, মুনমুন সেন, অতীত শাহ এবং আমেরিকার ডন মুয়েলার, স্টেফানি সিগেল।

৬। সাদিয়া নাবিলা (পেরেশান পারিন্দা)
বাংলাদেশের মডেল ও চিত্রনায়িকা সাদিয়া নাবিলাকে দেখা গেছে বলিউডের ‘পেরেশান পারিন্দা’ নামের একটি সিনেমায়। সিনেমাটি পরিচালনা করেন দেবেশ প্রতাপ সিং। ২০১৮ সালের মার্চ মাসে বাংলাদেশি এই তরুণীর অভিষেক হয় বলিউডের সিনেমায়। বলিউডের সিনেমা মুক্তি পেলেও বাংলাদেশের সিনেমায় অপেক্ষাকৃত নতুন মুখ সাদিয়া নাবিলা। বর্তমানে সাদিয়া নাবিলা অভিনীত বাংলাদেশি সিনেমা ‘মিশন এক্সট্রিম’ মুক্তি অপেক্ষায় রয়েছে। সিনেমাটিতে তিনি আরিফিন শুভর বিপরীতে অভিনয় করেছেন।

৭। নিরব (শয়তান)
বলিউডে ‘শয়তান’ নামের একটি সিনেমায় অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের অভিনেতা নিরব। সিনেমাটি ২০১৭ সালের ১১ই অক্টোবর ভারতে মুক্তি পেয়েছে। বলিউডের ‘শয়তান’ সিনেমায় নিরবের বিপরীতে অভিনয় করেছেন রাধেশ্যাম। ফেইথ পিকচার ইনকরপোরেশনের ব্যানারে সিনেমাটি পরিচালনা করেন বলিউডের প্রখ্যাত নির্মাতা ফয়সাল সাইফ। তবে সিনেমাটি নিয়ে পরবর্তীতে ফয়সাল সাইফ এবং নিরবের মধ্যে কিছুটা পরস্পর বিরোধী অবস্থান দেখা গেছে।

৮। জাকিয়া বারী মম (ম্যাক্স কি গান)
সামির খানের পরিচালনায় ‘ম্যাক্স কি গান’ সিনেমার মাধ্যমে বলিউডে নাম লিখিয়েছেন বাংলাদেশের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্ত অভিনেত্রী জাকিয়া বারী মম। সিনেমাটিতে বিশেষ সিবিআই অফিসার জাকিয়া খানের চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। ফয়সাল সাইফের গল্পে সিনেমাটি এখনো মুক্তি পায়নি। সিনেমাটিতে আরও অভিনয় করছেন তেলেগু-তামিল নায়িকা কবিতা রাধে শ্যাম, নিশাত পাণ্ডে, সোনম ম্যাক্স, অমিতা নাগিয়া প্রমুখ।

৯। তানজিয়া জামান মিথিলা (রোহিঙ্গা)
রোহিঙ্গাদের নিয়ে নির্মিত বলিউড সিনেমা ‘রোহিঙ্গা’র মাধ্যমে বলিউডে অভিষিক্ত হচ্ছেন বাংলাদেশি মডেল তানজিয়া জামান মিথিলা। বলিউডের নির্মাতা ও ফটোগ্রাফার হায়দার খানের পরিচালনায় সিনেমাটিতে একজন রোহিঙ্গা নারী চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। রোহিঙ্গা এবং হিন্দি দুই ভাষাতে কাজ করেছেন মিথিলা। ‘রোহিঙ্গা’ সিনেমাটি প্রযোজনা করেছে লায়ন প্রোডাকশন। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করছেন ‘মিস্টার ভুটান’ স্যাঙ্গে।

প্রিয় পাঠক উপরের সিনেমাগুলোর মধ্যে কোন সিনেমাটি আপনি দেখেছেন এবং বলিউডের সিনেমায় কেমন ছিলো বাংলাদেশি তারকাদের অভিনয় তা আমাদের জানিয়ে দিন ঝটপট।

আরো পড়ুনঃ
ঢালিউডে যৌথ প্রযোজনার সিনেমা: সময়ের ধারাপাতে অতীত থেকে বর্তমান
জাপানি সিনেমা থেকে অনুপ্রাণিত হলিউডের কিছু আলোচিত সিনেমা

নাবীল অনুসূর্য
জন্ম ও বেড়ে ওঠা ঢাকায়। স্কুলের পাঠ চুকিয়েছেন ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ থেকে, ঢাকা কমার্স কলেজ থেকে কলেজের পাঠ। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শেষ করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের শুরু থেকেই ফিচার-সাংবাদিকতার সঙ্গে জড়িত। বর্তমানে বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভের ফেলোশিপ নিয়ে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের উপর একটি গবেষণার কাজ করছেন। গবেষণার বিষয় আমাদের চলচ্চিত্রে ’৫২-র উপস্থাপন: অনুসন্ধান ও পর্যালোচনা। এছাড়াও ফ্রি-ল্যান্সিং লেখালেখি করছেন বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায়, ম্যাগাজিনে ও অন্যান্য মাধ্যমে।

এ সম্পর্কিত

আরো পড়ুন

- Advertisement -
- Advertisement -

সর্বশেষ

মুক্তি প্রতীক্ষিত

  • লিডার আমিই বাংলাদেশ
    লিডার আমিই বাংলাদেশ