সবচেয়ে লম্বা সময় ধরে চলা বিশ্বের আলোচিত ১৫টি সিনেমা ফ্র্যাঞ্চাইজি

হলিউডে সিনেমার ফ্র্যাঞ্চাইজি বেশ জনপ্রিয় এবং প্রতিষ্ঠিত একটি বিষয়। সাম্প্রতিক সময়ে ব্যবসা সফল বা প্রতীক্ষিত সিনেমার তালিকা পর্যালোচনা করলে হলিউডের সিনেমায় ফ্র্যাঞ্চাইজির প্রভাবটা স্পষ্টভাবে বোঝা যায়। বর্তমানে হলিউডের মুক্তি প্রতীক্ষিত সিনেমাগুলোর মধ্যে রয়েছে মার্ভেল, ডিসি এক্সটেন্ডেড ইউনিভার্স, জেমস বন্ড, ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াস এবং ওয়ার্নার ব্রোসের মতো শীর্ষস্থানীয় ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলির নতুন সিনেমা। আলোচিত এবং জনপ্রিয় এই ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলির সিনেমা কয়েক দশক ধরে বিশ্বব্যাপী বক্স অফিসকে শক্তিশালী করেছে। আজকের এই লিখায় থাকছে সবচেয়ে লম্বা সময় ধরে চলা হলিউডের ১৫টি সিনেমা ফ্র্যাঞ্চাইজি নিয়ে আলোচনা।

- Advertisement -

১। গডজিলা
গডজিলার গল্প শুরু হয়েছিলো ১৯৫৪ সালে জাপান থেকে। এরপর এখন পর্যন্ত মোট ৩৬টি সিনেমার মাধ্যমে পর্দায় অনেকটাই অমরত্ব পেয়েছে এই ফ্র্যাঞ্চাইজিটি। মুক্তিপ্রাপ্ত ৩৬টি সিনেমার মধ্যে ৩২টি জাপানের প্রযোজনায় এবং বাকি চারটি নির্মিত হয়েছে হলিউডে। এই ফ্র্যাঞ্চাইজির সর্বশেষ সিনেমা ‘গডজিলা ভার্সেস কং’ চলতি বছরে মুক্তি পেয়েছে এবং দর্শকপ্রিয়তা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

- Advertisement -

২। জেমস বন্ড
ফ্র্যাঞ্চাইজি সিনেমার দুনিয়ায় সবচেয়ে বড় নাম ‘০০৭’ এবং এখনো নিজের অবস্থানে উজ্জ্বল। এই ফ্র্যাঞ্চাইজির ২৫তম সিনেমা ‘নো টাইম টু ডাই’ বর্তমানে মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। ৫৯ বছর ধরে সিক্রেট এজেন্ট ভিত্তিক গল্পের সিনেমাটি দর্শক মাতিয়ে আসছে। ১৯৬২ সালে শন কনেরি অভিনীত ‘ড নো’ সিনেমার মাধ্যমে যাত্রা শুরু করেছিলো ‘জেমস বন্ড’ ফ্র্যাঞ্চাইজি। এই সিরিজের মুক্তি প্রতীক্ষিত ‘নো টাইম টু ডাই’ সিনেমায় অভিনয় করেছেন ডেনিয়েল ক্রেগ।

৩। মার্ভেল সিনেমাটিক ইউনিভার্স
১৩ বছরে ২৩টি সিনেমা দিয়ে জেমস বন্ডকে আয়ের দিক থেকে সবচেয়ে বেশী চ্যালেঞ্জ দিচ্ছে মার্ভেল সিনেমাটিক ইউনিভার্স (এমসিইউ)। ২০০৮ সালে রবার্ট জুনিয়র অভিনীত ‘আয়রন ম্যান’ সিনেমার মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে জনপ্রিয় এই ফ্র্যাঞ্চাইজি। আগামী কয়েক বছরের মধ্যে এই ফ্র্যাঞ্চাইজির আরো ১১টি সিনেমা মুক্তির কথা রয়েছে। এরমধ্যে ‘এভেঞ্জার্সঃ এন্ডগেম’ সিনেমাটি ‘এভাটার’কে টপকে সবচেয়ে বেশী আয়ের সিনেমার তালিকায় স্থান পেয়েছিলো। অবশ্য পরে ‘এভাটার’ আবারো সর্বোচ্চ আয়ের সিনেমার স্থান দখল করেছে।

৪। স্টার ট্রেক
স্টার ট্রেক একাধারে লম্বা সময় টিকে থাকা সম্ভাবনাময়ী ফ্র্যাঞ্চাইজি। ১৯৭৯ সালে শুরু হওয়ার পর ২৯ বছরে এই ফ্র্যাঞ্চাইজির মোট ১৩টি সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। বর্তমানে এই ফ্র্যাঞ্চাইজির নতুন সিনেমা নিয়ে কাজ চলছে বলে জানা গেছে।

৫। এক্স-ম্যান
এক্স-ম্যান যদিও মার্ভেলের কিন্তু এই ফ্র্যাঞ্চাইজিটি মার্ভেল সিনেমাটিক ইউনিভার্সের অন্তর্ভুক্ত নয়। এমসিইউ থেকে আলাদা পুরোপুরি নিজস্ব একটি পরিচয় নিয়ে এগিয়ে গেছে এই ফ্র্যাঞ্চাইজি। ‘উলভেরিন’ ট্রিলজিসহ এক্স-ম্যানের এখন পর্যন্ত মোট দশটি সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। এছাড়া এক্স-ম্যানের সাথে ‘ডেডপুল’ সিরিজের দুটি এবং ২০২০ সালের ‘দ্যা নিউ মিউটেন্টস’ মিলিয়ে মোট সিনেমার সংখ্যা ১৩টি। প্রসঙ্গত সম্প্রতি মার্ভেল ‘ডেডপুল’ সিরিজের স্বত্ব কিনে নিয়ে সিরিজটিকে এক্স-ম্যান ফ্র্যাঞ্চাইজির অন্তর্ভুক্ত করেছেন।

৬। স্পাইডার-ম্যান
যদিও সাম্প্রতিক সময়ে মার্ভেলের স্পাইডার-ম্যান চরিত্রকে এমসিইউ’র অন্তর্ভুক্ত করলেও এই ফ্র্যাঞ্চাইজিটি আলাদাভাবে উল্লেখের দাবি রাখে। ১৯৭৭ সালে ছোট পর্দা দিয়ে স্পাইডার-ম্যানের যাত্রা শুরুর পর আরো দুটি ছোট পর্দার সিনেমা নির্মিত হয়েছিলো। তবে এই চরিত্র নিয়ে বড় পর্দার প্রথম সিনেমা নির্মিত হয়েছিলো জাপানে ১৯৭৮ সালে। এরপর ২০০০ এর সময়ে টবে ম্যাগুরিকে নিয়ে স্যাম রাইমি তিনটি সিনেমা নির্মান করেন। এরপর একই চরিত্রের উপর ভিত্তি করে এন্ড্রু গারফিল্ডকে নিয়ে মার্ক ওয়েব নির্মান করেন আরো দুইটি সিনেমা। সর্বশেষ টম হোলেন্ড অভিনীত ‘স্পাইডার-ম্যানঃ হোমকামিং’ এবং ‘ফার ফ্রম হোম’ মিলিয়ে মোট ১১টি সিনেমা নির্মিত হয়েছে। এই ফ্র্যাঞ্চাইজির ১২তম সিনেমা ‘স্পাইডার-ম্যানঃ নো ওয়ে হোম’ চলতি বছরের ডিসেম্বরে মুক্তির কথা রয়েছে।

৭। স্টার ওয়ার্স
তিনটি ট্রিলজি মিলিয়ে মোট নয়টি সাথে আছে ‘রগ ওয়ান’ এবং ‘সোলো’ মোট ১১টি সিনেমা মুক্তি পেয়েছে স্টার ওয়ার্স ফ্র্যাঞ্চাইজি ব্যানারে। এই ফ্র্যাঞ্চাইজিটির যাত্রা শুরু হয়েছিলো ১৯৭৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘এ নিউ হোপ’ সিনেমার মাধ্যমে। আর সর্বশেষ ‘দ্যা রাইজ অফ স্কাইওয়াকার’ মুক্তি পেয়েছে ২০১৯ সালে। ৪২ বছর ধরে গ্যলাক্সিতে ঘুরে বেড়াচ্ছে এই সিনেমার গল্প।

৮। ব্যাটম্যান
এমসিইউ থেকে যে যুক্তিতে স্পাইডার-ম্যানকে আলাদা করা হয়েছে সেই একই যুক্তিতে ব্যাটম্যানকে ডিসি এক্সটেনডেড ইউনিভার্স থেকে আলাদা করা হয়েছে। এই ফ্র্যাঞ্চাইজির এখন পর্যন্ত মোট ১১টি সিনেমা মুক্তি পেয়েছে যার শুরু হয়েছিলো ১৯৪৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ব্যাটম্যান’ সিনেমার মাধ্যমে। এই ফ্র্যাঞ্চাইজির সর্বশেষ সিনেমা মুক্তি পেয়েছে ২০১২ সালে। ‘দ্যা ডার্ক নাইট রাইসেস’ সিনেমার পর ব্যাটম্যান ফ্র্যাঞ্চাইজির আলাদা কোন সিনেমা দেখা যায়নি। তবে ২০২২ সালে রবার্ট প্যাটিসন অভিনীত ‘দ্যা ব্যাটম্যান’ মুক্তি পেলে ফ্র্যাঞ্চাইজিটি নিয়ে হিসেব নিকেশ বদলে যাবে বলে ধারনা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

৯। ডিসি এক্সটেনডেড ইউনিভার্স
ডিসি এক্সটেনডেড ইউনিভার্সের এখন পর্যন্ত মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমার সংখ্যা নয়টি। সাত বছরের ব্যবধানে নয়টি সিনেমা নিয়ে এই ফ্র্যাঞ্চাইজিটি অন্যতম সম্ভাবনাময়ী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। ২০১৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ম্যান অফ ষ্টীল’ সিনেমা দিয়ে যাত্রা শুরু করা এই ইউনিভার্সের সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা ‘ওয়ান্ডার ওমেন ১৯৮৪’। এছাড়া আরো বেশ কয়েকটি সিনেমা বর্তমানে নির্মানাধীন রয়েছে যার মধ্যে ‘দ্যা সুইসাইড স্কোয়াড’ সিনেমাটি চলতি বছরে মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে।

১০। প্ল্যানেট অফ দ্যা এপ্স
একটি ফরাসি উপন্যাসের উপর ভিত্তি করে নির্মিত ‘প্ল্যানেট অফ দ্যা এপ্স’ ফ্র্যাঞ্চাইজির এখন পর্যন্ত মোট নয়টি সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। এরমধ্যে ১৯৬০ এবং ১৯৭০ এর দশকে মুক্তি পেয়েছে মৌলিক ৫টি সিনেমা। এরপর টিম বার্টন ২০০১ সালে ‘প্ল্যানেট অফ দ্যা এপ্স’ সিনেমাটি পুনঃনির্মান করেন এবং এই রিবুটে আরো তিনটি সিনেমা রয়েছে। এই ফ্র্যাঞ্চাইজির সর্বশেষ সিনেমা মুক্তি পেয়েছিলো ২০১৭ সালে। ৪৯ বছর ধরে পর্দায় দর্শক মাতিয়ে আসছে এই ফ্র্যাঞ্চাইজির সিনেমাগুলো।

১১। ফাস্ট এন্ড ফিউরিয়াস
মাত্র ২০ বছরে ৯টি সিনেমা নিয়ে অন্যতম শক্তিশালী সিনেমা ফ্র্যাঞ্চাইজি ‘ফাস্ট এন্ড ফিউরিয়াস’। এই ফ্র্যাঞ্চাইজির নবম পর্ব ‘এফ ৯: ফাস্ট সাগা’ সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে। সিনেমাটির প্রযোজক এবং প্রধান তারকা ভিন ডিজেল জানিয়েছেন আর দুই পর্ব দিয়ে শেষ হচ্ছে ফ্র্যাঞ্চাইজিটির যাত্রা। সবকিছু ঠিক থাকলে সিনেমাটির পরবর্তি দুটি পর্ব মুক্তি পাবে যথাক্রমে ২০২৩ এবং ২০২৪ সালে। প্রসঙ্গত ‘বব এন্ড হবস শো’ সিনেমাটি এখানে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি।

১২। মায়েদা
২০০৫ সাল থেকে এখন পর্যন্ত টেইলর পেরির ‘মায়েদা’ চরিত্রকে মোট নয়টি সিনেমায় দেখা গেছে (এছাড়া দুইটি সিনেমায় অতিথি চরিত্রেও দেখা গেছে)। পেরি ২০১৯ সালে ঘোষানা দিয়েছিলেন যে তিনি চরিত্রটি থেকে অবসর নিচ্ছেন কিন্তু জানা গেছে ২০২২ সালে নেটফ্লিক্সের ‘এ মায়েদা হোমকামিং’ সিনেমার মাধ্যমে পর্দায় ফিরছেন টেইলর পেরি।

১৩। হ্যারি পর্টার
দশ বছরে হ্যারি পর্টারের মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমার সংখ্যা ৮টি। অন্যদিকে ফ্যান্টাস্টিক বিস্টের মুক্তি পেয়েছে দুটি সিনেমা – ‘ফ্যান্টাস্টিক বিস্টস এন্ড হয়ার টু ফাইন্ড দেম’ এবং ‘ফ্যান্টাস্টিক বিস্টসঃ দ্যা ক্রাইম অফ গ্রিন্ডেলয়াল্ড’। এছাড়া আরো তিনটি সিনেমা বর্তমানে পরিকল্পনার পর্যায়ে রয়েছে।

১৪। দ্যা কঞ্জুরিং
হরর সিনেমাপ্রেমীদের কাছে অন্যতম জনপ্রিয় এই ফ্র্যাঞ্চাইজির আট বছরে সিনেমার সংখ্যা আটটি। ২০১৩ সালে শুরু হওয়া এই ফ্র্যাঞ্চাইজির সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা ‘দ্যা কঞ্জুরিংঃ দ্যা ডেবিল মেইড মি ডু ইট’। এছাড়া জানা গেছে ফ্র্যাঞ্চাইজিটির আরো দুটি সিনেমার কাজ চলছে।

১৫। দ্যা রকি
সিলভেস্টার স্ট্যালোনের আইকোনিক চরিত্র রকিকে ১৯৭৬ থেকে ২০০৬ পর্যন্ত ৩০ বছরে মোট ছয়টি সিনেমায় দেখা গেছে। এর সাথে ‘ক্রিড’র দুটি যোগ করলে মোট সিনেমা দাঁড়ায় আটটি। ‘ক্রিড’ সিনেমায় সিলভেস্টার স্ট্যালোন মাইকেল বি জর্দানের সাথে রকি রুপে পর্দায় আবির্ভুত হয়েছিলেন। জানা গেছে ‘ক্রিড’ এর তৃতীয় পর্বটি ২০২২ সালে মুক্তির পরিকল্পনা করছেন নির্মাতারা।

প্রিয় সিনেমাখোর সবাই, উপরে উল্লেখিত ফ্র্যাঞ্চাইজির বাইরে কোন ফ্র্যাঞ্চাইজি নিয়ে আপনি বেশী আগ্রহী তা আমাদের মন্তব্যের মাধ্যমে জানিয়ে দিন ঝটপট।

আরো পড়ুনঃ
ডিসি এবং মার্বেল কমিক্সের যে চরিত্রগুলো বিশেষত্বের দিক থেকে অভিন্ন!
বক্স অফিসে সর্বাধিক আয় করা ১৩টি হলিউড সিনেমা ফ্রাঞ্চাইজি
বিজ্ঞান কল্পকাহিনীর নতুন থ্রীলার সিনেমায় নতুন রুপে ক্রিস্টেন স্টুয়ার্ট

হোসেন মৌলুদ তেজোhttps://iammoulude.com/
হোসেন মৌলুদ তেজো একজন নিয়মিত ব্লগার যিনি সিনেমা নিয়ে লিখতে ভালোবাসেন। সিনেমার পাশাপাশি কবিতা, ছোট গল্প, সমসাময়িক এবং ব্যবসা সম্পর্কিত বিষয়েও লিখে থাকেন। প্রফেশনালী একটি বেসকারী আর্থিক প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন। ব্যক্তি জীবনে তিনি বই পড়ে, সিনেমা দেখে এবং তার একমাত্র ছেলের সাথে সময় কাটাতে পছন্দ করেন।

এ সম্পর্কিত

আরো পড়ুন

- Advertisement -

সর্বশেষ

মুক্তি প্রতীক্ষিত

  • লিডার আমিই বাংলাদেশ
    লিডার আমিই বাংলাদেশ