‘ব্রহ্মাস্ত্র’ প্রমাণ করলো বক্স অফিসে ‘বয়কট ডাক’ অপ্রাসঙ্গিক এবং অযৌক্তিক

বক্স অফিসে ‘বয়কট ডাক’

চলতি বছরে বলিউডের সিনেমার বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পরার সাথে বয়কট প্রচারণা বিষয়টি ঘুরে ফিরে এসেছে বার বার। নতুন কোন সিনেমা মুক্তির ঘোষণা আসলে বা মুক্তির সময় ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দর্শকদের একটি অংশকে সিনেমাটি বয়কটের ডাক দিতে দেখা গেছে। অতীতের বিভিন্ন ইস্যুকে কেন্দ্র করে সিনেমাটির মূল তারকাদের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালিয়েছেন অনেকে। আর যখন কোন তারকার বিরুদ্ধে কোন ইস্যু না পাওয়া যায়, তখম সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুকে টেনে পুরো বলিউড বক্স অফিসে ‘বয়কট ডাক’ প্রচারণা শুরু করেন তারা।

- Advertisement -

গত মাসের বলিউড সুপারস্টার আমির খান অভিনীত বহুল প্রতীক্ষিত ‘লাল সিং চাড্ডা’ সিনেমাটির বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পরেছিলো। আমির খানের মত তারকার উপস্থিতি স্বত্বেও সিনেমাটি বক্স অফিসে ভালো শুরু করতে ব্যর্থ হয়েছিলো। আর ‘লাল সিং চাড্ডা’ সিনেমাটির ব্যর্থতার কৃতিত্ব বয়কটের ডাক দেয়া দল নেয়। তাদের দাবী অনুযায়ী সিনেমাটি বয়কটের কারনে মুখ থুবড়ে পরেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সিনেমাটি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণাকে এই ব্যর্থতার কারন হিসেবে মনে করছিলেন অনেকে। কিন্তু প্রকৃত অর্থে তথাকথিত এই ‘বয়কট ডাক’ সিনেমার বক্স অফিস ফলাফলের ক্ষেত্রে পুরোপুরি অপ্রাসঙ্গিক এবং এমন ভাবাটাও অযৌক্তিক। অন্তত, সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ সেটাই প্রমাণ করেছে।

আমির খানের ‘লাল সিং চাড্ডা’ সিনেমার পর এই বয়কট গ্যাং-এর পরবর্তি টার্গেটে পরে রণবীর কাপুর এবং আলিয়া ভাট অভিনীত ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ সিনেমাটি। আমির খানের সিনেমাটির ব্যর্থতায় বোকার সব স্বর্গে বাস করা এই মানুষজন ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ সিনেমার ক্ষেত্রে আরো আগ্রাসী হয়ে সামনে আসে। ৯ই সেপ্টেম্বর সিনেমাটির মুক্তিকে সামনে রেখে বলিউডের স্বজনপ্রীতি, বণবীরের গরুর মাংস খাওয়া থেকে শুরু করে অযৌক্তিক সব বিষয়কে সামনে নিয়ে আসে এই বয়কট গ্যাং। আর যখন কোন কিছুই না থাকে তখন পুরো বলিউডকে সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর জন্য দায়ী করে বলিউডকে বয়কটের ডাক দেয়।

- Advertisement -

কিন্তু এখন পর্যন্ত বক্স অফিসে বয়কটের কোন প্রভাব প্রমাণিত হয়নি। উল্টো বক্স অফিসে ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ সিনেমাটির দুর্দান্ত শুরু এই ‘বয়কট ডাক’-এর অপ্রাসঙ্গিকতা এবং অযৌক্তিকতাকে প্রতিষ্ঠিত করেছে। সোশ্যাল মিডিয়া এবং ডিজিটাল বিশ্ব থেকে আসা এই বয়কট ডাককে দুঃখজনকভাবে অনেকেই বক্স অফিসে সিনেমার ধারাবাহিক বুর্থতার কারন হিসেবে বিশ্বাস করছেন। ইন্ডাস্ট্রির ভিতরের এবং বাইরের বেশিরভাগ অংশ সামগ্রিক বিষয়ে অজ্ঞাত। কিন্তু আমির খান প্রোডাকশনের মতো একটি দায়িত্বশীল এবং সম্মানিত প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান যখন সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ্যে ক্ষমা চায় তখন এটি একটু বেশি গুরুতর হয়ে যায়।

এই প্রেক্ষিতে ‘লাল সিং চাড্ডা’ সিনেমার কথা বিবেচনা করা যাক। এই সিনেমাটির ব্যর্থতার অন্যতম প্রধান কারন ছিলো সিনেমাটির বিষয়বস্তু। বয়কট হয়তো প্রাথমিকভাবে দর্শকদের কিছুটা বিরত রাখতো, কিন্তু সিনেমা দর্শকদের কাছে ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া পেলে অবশ্যই দর্শক টানতে সক্ষম হত। কিন্তু সিনেমাটি নিয়ে দর্শকদের নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া ছিলো চরমে। সামগ্রিকভাবে মহামারী পরবর্তি সময়ে দর্শকদের পছন্দেও বেশ পরবির্তন এসেছে। এখন সিনেমার দর্শকরা বড় আয়োজনে নির্মিত অ্যাকশন সিনেমা পর পর্দায় দেখতে বেশী আগ্রহী। ‘লাল সিং চাড্ডা’-এর মত সিনেমা দেখার ক্ষেত্রে স্বাভাবিকভাবেই ওটিটিকে প্রাধান্য দিচ্ছেন দর্শকরা।

- Advertisement -

কিন্তু এই বয়কটকে সামনে রেখে কোন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান যখন প্রকাশ্যে দুঃখ প্রকাশ করে তখন অপ্রাসঙ্গিক এবং অযৌক্তিক বিষয়ে নতুন করে আস্ফালন যোগ হয়। এর মাধ্যমে কিছু অসুস্থ মানুষদের বয়কটের নামে একটি অসুস্থ ক্যাম্পেইনকে শক্তিশালী ভাবতে সাহায্য করে। আর এই বিশ্বাস যদি নতুন করে আগুনের ফুলকির স্পর্শ পায় তাহলে সামনের দিনগুলোতে বয়কট নামের এই অপ্রাসঙ্গিক এবং অযৌক্তিক বিষয়টি সিনেমার মুক্তির ক্ষেত্রে নতুন বাধা নিয়ে আসবে, যা বলিউডের জন্য মোটেও সুখকর কিছু হবেনা।

তথাকথিত বয়কটের যৌক্তিক কারন থাকলে সেটা মোকাবেলা করার জন্য যৌক্তিক একটি পদক্ষেপ কার্যকর ভূমিকা পালন করতে পারত। তাই প্রকাশ্যে ক্ষমা প্রার্থনা এবং দুঃখ প্রকাশ বয়কটকারীদের মুখ বন্ধ করবে না। এই বয়কটকারীদের মুখ বন্ধ করার একমাত্র উপায় হচ্ছে বক্স অফিসে ব্যবসাসফল সিনেমা। এইসব বয়কট ডাককে গুরুত্ব না দিয়ে বলিউডের নির্মাতা এবং তারকাদের উচিৎ মান সম্পন্ন সিনেমার দিকে মনোনিবেশ করা। একমাত্র দর্শকপ্রিয় সিনেমাই পারবে চলমান প্রতিকূলতাকে পিছনে ফেলে বলিউডের ঐতিয্য ফিরিয়ে আনতে। কিন্তু দুঃখজনক ভাবে ইন্ডাস্ট্রির মানুষজন বয়কট নিয়ে কথা বলে অপ্রাসঙ্গিক এবং অযৌক্তিক বিষয়কে অযাচিত গুরুত্ব দিচ্ছেন।

সিনেমার বিষয়বস্তু যদি ভালো হয় এবং দর্শকদের বিনোদন দেয়ার মত পর্যাপ্ত উপাদান নিয়ে হাজির হয় তাহলে বয়কটের ডাক কোন বাধাই তৈরি করতে পারবে না। আর তার সবচেয়ে বড় উদাহরণ গত ৯ই সেপ্টেম্বর মুক্তিপ্রাপ্ত অয়ন মুখার্জি পরিচালিত ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ সিনেমাটি। অনেক শক্তিশালী এবং সুসংঘটিত বয়কট ডাক স্বত্বেও সিনেমাটির অগ্রিম টিকেট কিনতে হুমড়ি খেয়ে পরতে দেখা গেছে দর্শকদের। অগ্রিম টিকেট বিক্রি থেকে দুর্দান্ত আয়ের পর মুক্তির প্রথম দিনে সিনেমাটি রেকর্ড পরিমাণ আয়ের মাধ্যমে এর বক্স অফিস যাত্রা শুরু করেছে। প্রথম দিনে ভারতীয় বক্স অফিসে ৩৬.৫০ কোটি রুপি আয়ের মাধ্যমে বয়কট ডাকের মুখে কষাঘাত করেছে সিনেমাটি।

কোন সন্দেহ নেই যে আগামীতে মুক্তিপ্রাপ্ত বড় বাজেটের সিনেমা ‘বিক্রম ভেধা’, ‘কিসি কা ভাই কিসি কা জান’, ‘পাঠান’, ‘টাইগার ৩’ সিনেমাগুলো এই বয়কট ডাকের মুখে পরবে। কিন্তু ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ সিনেমাটির বক্স অফিসে দুর্দান্ত শুরুটা বলিউড সংশ্লিষ্টদের কাছে একটি বার্তা দিয়েছে যে বক্স অফিসে ‘বয়কট ডাক’ অপ্রাসঙ্গিক এবং অযৌক্তিক। যদি সিনেমার বিষয়বস্তু ভালো হয় এবং তা দর্শকদের আগ্রহ তৈরি করতে পারে তাহলে যেকোন সিনেমা এই বাধাকে অতিক্রম করে যাবে। সময়ের সাথে সাথে এই বয়কট ডাকও তার শক্তি হারিয়ে আলোচনার বাইরে চলে যাবে। বয়কটের ব্যাপারে সংবাদ মাধ্যমের সাথে কথা না বলে এটিকে নিজের অজান্তে প্রচারণার সুবিধা নিতে দেয়াটা বোকামি হবে বলিউড সংশ্লিষ্টদের পক্ষ্য থেকে।

এর আগেও এরকম ঘটনা দেখা গেছে। আমির খান অভিনীত ‘দাঙ্গাল’, সঞ্জয় লীলা বানসালী পরিচালিত ‘পদ্মাবত’ সিনেমাগুলোও বয়কটের মুখে পরেছিলো। কিন্তু সিনেমার বিষয়বস্তু ভালো হওয়ার কারনে এইগুলো কোন সিনেমার ক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি। উদাহরণস্বরূপ আলিয়া ভাট অভিনীত ‘গাঙ্গুবাই কাঠিওয়ারি’ সিনেমার কথাও বলা যায়। বয়কটকারীদের এই বয়কট ডাকের অন্যতম বড় এজেন্ডা হচ্ছে বলিউডের স্বজনপ্রীতি। কিন্তু স্বজনপ্রীতির অন্যতম বড় প্রাপ্ত আলিয়া ভাট অভিনীত সিনেমাটি বক্স অফিসে ঠিকই ভালো ব্যবসা করতে সক্ষম হয়েছে।

বয়কটের কারনে সিনেমাগুলোর বক্স অফিস সংগ্রহে প্রভাব প্রসঙ্গে বলিউডের ট্রেড বিশেষজ্ঞ এবং চলচ্চিত্র সমালোচক তারন আদর্শ বলেন, ‘যেকোন সিনেমা যদি বিষয়বস্তুর দিক থেকে ভালো হয় তাহলে বয়কট, পরীক্ষা, আইপিএল, খারাপ আবহাওয়া বা অন্য কোন প্রতিকূলতার বিপরীতে দাড়িয়ে থাকতে পারে। লাল সিং চাড্ডা সিনেমাটি বিষয়বস্তুর দিক থেকে দুর্বল ছিলো। এছাড়া একজন প্রথমসারির তারকা যখন সিনেমা নির্মান করেন সেটা সব শ্রেণির দর্শকদের জন্য নির্মান করা উচিৎ। বড় বাজেটের সিনেমা শুধু মাল্টিপ্লেক্স দর্শকদের জন্য নির্মান করাটা অযৌক্তিক। লাল সিং চাড্ডা সিনেমাটি বড় বাজেটে নির্মিত হয়েছিলো কিন্তু সব দর্শকের কথা মাথায় রেখে নির্মান করা হয়নি।‘

একই মতামত দিয়েছেন প্রযোজক এবং ব্যবসায়িক পর্যালোচক গিরীশ জোহর। তিনি বলেন, ‘বয়কটকে আমি কারন বলে বিশ্বাস করি না। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম খুবই ছোট একটি অংশ যা সিনেমার সংগ্রহকে প্রবাভিত করার ক্ষমতা রাখে। সিনেমার শুরুটা কখনোই মানুষের মুখের কথার উপর নির্ভর করেনা। আমির খানের ‘থাগ অফ হিন্দুস্থান’ সিনেমাটি নিয়েও দর্শকদের মাঝে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছিলো, কিন্তু সিনেমাটি প্রথম দিন বক্স অফিসে রেকর্ড পরিমাণ আয় করেছিলো। চলতি বছরে এখন পর্যন্ত আমরা কোন সিনেমার ভালো শুরু দেখতে পাইনি।‘

২০২২ সালে যে সিনেমাগুলো বক্স অফিসে ভালো করেছে সেগুলো বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই ইভেন্ট সিনেমা ছিলো। ‘বাহুবলী’ সিরিজের পর রাজামৌলীর নতুন সিনেমা নিয়ে দর্শকদের অপেক্ষা অনেকদিনের। সিনেমাটি নিয়ে সবার আগ্রহ ছিলো আকাশচুম্বী। অন্যদিকে ‘কেজিএফ’ সিনেমার বিশাল সাফল্যের পর ‘কেজিএফ চ্যাপ্টার ২’ নিয়ে দর্শকদের আগ্রহ ছিলো অনেক। বক্স অফিসে ব্যর্থ সিনেমাগুলো সবচেয়ে বড় কারন হিসেবে গল্প এবং বিষয়বস্তুর দূর্বলতাই বেশী দায়ী। এছাড়া সাম্প্রতিক সিনেমাগুলো ব্যবসায়িক ব্যর্থতার অন্যতম প্রধান কারন হচ্ছে এই সিনেমাগুলোর মহামারীর আগের। কিন্তু মহামারীর পর সিনেমার ক্ষেত্রে দর্শকদের রুচির বিশাল পরিবর্তন লক্ষ্য করা গেছে। এছাড়া শুধু বলিউডে নয় চলতি বছরে দক্ষিণের সিনেমাগুলোও ব্যবসায়িকভাবে সুবিধা করতে পারছে না।

এদিকে সামনে মুক্তি অপেক্ষায় রয়েছে আরো কয়েকটি বড় বাজেটের সিনেমা। ধারাবাহিকভাবে মুক্তি পেতে যাচ্ছে ‘বিক্রম ভেধা’, ‘রাম সেতু’, ‘কিসি কা ভাই কিসি কা জান’, ‘পাঠান’ এবং ‘টাইগার ৩’ সিনেমাগুলো। সন্দেহাতীতভাবেই এই প্রতিটি সিনেমা বয়কট প্রচারণা মোকাবেলা করতে যাচ্ছে। এই সিনেমাগুলোর বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বয়কট প্রচারণা শুরু করেছেন দর্শকদের একটি অংশ। তবে ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ বক্স অফিসে ‘বয়কট ডাক’কে অপ্রাসঙ্গিক এবং অযৌক্তিক প্রমানের মাধ্যমে বলিউডকে নতুন করে ভাবতে সাহায্য করবে। বয়কটকে পিছনে ফেলে বলিউডের সিনেমাগুলো বক্স অফিসে স্বরূপে ফিরবে এমনটাই প্রত্যাশা সবার।

আরো পড়ুনঃ
বয়কট প্রচারণা কি আসলেই সিনেমার বক্স অফিস সংগ্রহকে প্রভাবিত করছে?
রেকর্ড প্রথম দিনের পর দ্বিতীয় দিনেও দুর্দান্ত আয়ের পথে ‘ব্রহ্মাস্ত্র’
বলিউড বক্স অফিসে নতুন রেকর্ড গড়ল রণবীর এবং আলিয়ার ‘ব্রহ্মাস্ত্র’

এ সম্পর্কিত

আরো পড়ুন

- Advertisement -
- Advertisement -

সর্বশেষ

মুক্তি প্রতীক্ষিত

  • লিডার আমিই বাংলাদেশ
    লিডার আমিই বাংলাদেশ