Notice: Function wpdb::prepare was called incorrectly. The query argument of wpdb::prepare() must have a placeholder. Please see Debugging in WordPress for more information. (This message was added in version 3.9.0.) in /www/wwwroot/filmymike.com/wp-includes/functions.php on line 6031
লেডি সুপারস্টার নয়নতারা: পুরুষ শাসিত তামিল সিনেমায় নারী স্টারডাম!

লেডি সুপারস্টার নয়নতারা: পুরুষ শাসিত তামিল সিনেমায় নারী স্টারডাম!

লেডি সুপারস্টার নয়নতারা

লেডি সুপারস্টার নয়নতারা

দক্ষিণ ভারতীয় সিনেমার সুপারস্টার নিয়ে কথা আসলে সবার আগে যে নামটি সামনে আসে তা হচ্ছে ‘রজনীকান্ত’। নিজের অভিনয়ের দক্ষতা এবং দর্শককে প্রেক্ষাগৃহে টেনে আনার ক্ষমতা দিয়ে নিজেকে অনন্য এক অবস্থায় নিয়ে গেছেন এই তারকা। সিনেমায় অভিনয় থেকে শুরু করে অ্যাকশন সবকিছুতে নিজের একটি নিজস্ব ধারা তৈরি করেছেন রজনীকান্ত। কিন্তু, দক্ষিণ ভারতীয় সিনেমায় অভিনেত্রী নিয়ে কথা আসলে একটি বিষয় দেখা যায় যে, বিয়ের পর অভিনেত্রীদের ক্যারিয়ার আর বেশীদিন স্থায়ী হয়না। ফলশ্রুতিতে অভিনয় এবং নিজস্ব একটা ভক্ত সমাজের কারনে নয়নতারা দক্ষিণ ভারতীয় সিনেমার কাঙ্ক্ষিত সুপারস্টারদের মধ্যে অন্যতম।

মুগ্ধতা ছাড়ানো সৌন্দর্য এবং দুর্দান্ত অভিনয় দক্ষতা দিয়ে পুরুষ শাসিত তামিল সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে লেডি সুপারস্টার নয়নতারা দাপটের সাথে টিকে আছেন দুই দশকের বেশী সময় ধরে। এই সময়ে এখন নয়নতারার ভক্ত ছড়িয়ে আছে পৃথিবীর সব প্রান্তে – ভাষা যেখানে কোন বাধাই না। সাধারণত প্রেক্ষাগৃহে দর্শক টানার জন্য অভিনেতাদের উপর নির্ভর করতে হয়, সেখানে নয়নতারা একাই সিনেমাকে কাঁধে বহন করে নিতে পারেন। তবে এই কাজটি মোটেই সহজ নয়। যদিও সাম্প্রতিক সময়ে নির্মাতারা নারী কেন্দ্রিক সিনেমার দিকে ঝুঁকছেন, একবিংশ শতাব্দীতে এসেও এখনো অভিনেত্রীদের নিজেদের সক্ষমতা প্রমানের লড়াই করতে হয় প্রতিনিয়ত। সিনেমার গল্পে অভিনেত্রীদের গুরুত্ব এবং পর্দায় নিজেদের জায়গা করে নেয়ার জন্য নয়নতারা একজন আদর্শ উদাহরণ। পুরুষ শাসিত তামিল সিনেমায় নয়নতারার এই লেডি সুপারস্টার হয়ে উঠার কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো এই লিখায়।

১। উচ্চ পারিশ্রমিকের দাবী
অন্যান্য জায়গার মত সিনেমা শিল্পেও অভিনেতা এবং অভিনেত্রীদের মধ্যে পারিশ্রমিকের ব্যবধান সবারই জানা। দক্ষিণ ভারতীয় সিনেমা সংশ্লিষ্টদের সূত্রে জানা গেছে লেডি সুপারস্টার নয়নতারা তার প্রতিটি সিনেমার জন্য ৩ থেকে ৫ কোটি রুপি পারিশ্রমিক দাবী করে থাকেন। দক্ষিণ ভারতীয় সিনেমায় সর্বোচ্চ আয়ের ক্ষেত্রে নয়নতারাই সবচেয়ে এগিয়ে। এছাড়া বেশ কিছু প্রতিবেদন অনুযায়ী, সিনেমায় নিজের পারিশ্রমিক নিয়ে কোন সমঝোতা করতে রাজি হননি বলে বেশ কিছু বড় সিনেমা ছেড়ে দিয়েছেন এই অভিনেত্রী। মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমাগুলোতে নয়নতারার অভিনয় এবং পর্দা উপস্থিতি তার এই দাবীর যৌক্তিকতা প্রমাণ করে বলে মনে করেন অনেকেই।

২। অভিনেত্রীদের জন্য নিজস্ব প্ল্যাটফর্ম
নারী কেন্দ্রিক গল্প এবং চিত্রনাট্য নিয়ে সিনেমা ভারতে খুব একটা দেখা যায়না। এছাড়া অনেক সিনেমায় অভিনেত্রীদের চরিত্রটি অনেকটাই নাম মাত্র থাকে যেখানে একজন অভিনেত্রীর দক্ষতার কোন প্রতিফলন হয়না। কিন্তু অভিনেত্রীদের জন্য নিজস্ব প্ল্যাটফর্ম তৈরির ক্ষেত্রে লেডি সুপারস্টার নয়নতারা অন্যদের থেকে সম্পুর্ন আলাদা। নয়নতারা অভিনীত সিনেমাগুলোতে নির্মাতারা তাকে আলাদা গুরুত্ব দিয়ে চিত্রনাট্য রচনা করে থাকেন। সিনেমাগুলোতে নয়নতারার প্রথম দৃশ্যগুলো যেমন আলাদাভাবে উপস্থাপন করা হয় তেমনি সংলাপেও থাকে ভিন্ন মাত্রা। সিনেমাগুলোতে তাকে গুরুত্ব দিয়ে দৃশ্য নির্মান তার প্রতিভার প্রতি একধরনের স্বীকৃতি বলা যায়।

লেডি সুপারস্টার নয়নতারা

৩। ‘নারীকেন্দ্রিক’ সিনেমাকে মূলধারায় প্রতিষ্ঠা করা
সিনেমার পর্দায় লেডি সুপারস্টার নয়নতারা সাধারণত গ্ল্যামারাস চরিত্রে হাজির হয়ে থাকেন। তবে সাম্প্রিতক সময়ে নয়নতারা এমন কিছু সিনেমায় অভিনয় করেছেন যেগুলোর গল্প তাকে ঘিরেই আবর্তিত হয়েছে। নয়নতারার একক সিনেমা হিসেবে প্রথম হিট সিনেমা হচ্ছে ‘মায়া’। ‘মায়া’ সিনেমাটির পর কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয়ের ক্ষেত্রে তাকে আর পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি। সাম্প্রতিক সময়ে তার অভিনীত সিনেমাগুলোতে তাকে দেখা গেছে কেন্দ্রীয় চরিত্রে। কেন্দ্রীয় চরিত্রে তার অভিনীত সিনেমাগুলোর মধ্যে ‘নেত্রিকান’, ‘নিঝল’, ‘কোলাইউথির কালাম’, ‘আইরা’, ‘ইমাইক্কা নোদিগাল’, ‘আরাম’ এবং ‘ডোরা’ উল্লেখযোগ্য। এই প্রতিটি সিনেমার গল্পই নয়নতারার চরিত্রকে ঘীরে রচিত হয়েছে।

৪। বাস্তব জীবন যাপনে সাহসিকতা
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নয়নতারাকে নিয়ে প্রায়ই বিভিন্ন ধরনের আলোচনা এবং ট্রল দেখা যায়। যদিও কোন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নয়নতারার কোন উপস্থিতি নেই, বিভিন্ন বিতর্কিত বিষয়ে তাকে নিয়ে শিরোনাম করা হয়ে থাকে। তার আগের সম্পর্ক নিয়ে মানুষের মধ্যে অনাকাঙ্ক্ষিত বিভিন্ন আলোচনা দেখা যায়। শুধু তাই নয়, সেটাকে নিয়ে নয়নতারাকে ছোট দেখানোর চেষ্টা করা হয়ে থাকে। কিন্তু এসবের কোনকিছুই আমলে নেননা এই অভিনেত্রী। লেডি সুপারস্টার নয়নতারা সাহসিকতার সাথে সবকিছু মোকাবেলা করে নিজের মতই নিজের জীবনকে উপভোগ করছেন।

৫। নিজের অবস্থানে শক্ত থাকা
লেডি সুপারস্টার নয়নতারা বিতর্ক এড়াতে সাধারণত কোন বিষয়ে প্রকাশ্যে মন্তব্য করেন না। কিন্তু এমন কিছু ঘটনা আছে, যেখন নয়নতারা তার অবস্থান শক্তভাবে তুলে ধরেছিলেন। একবার নির্মাতা সুরাজ একটি আলাপচারিতায় বলেছিলেন তার সিনেমায় তিনি অভিনেত্রীদের পুরো কাপর পরার অনুমতি দেন না। যদিও নয়নতারা সেই সিনেমার সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন না, তিনি এই ক্ষেত্রে নির্মাতার এই বক্তব্যের বিরুদ্ধে নিজের অবস্থান শক্তভাবে তুলে ধরেছিলেন। পরবর্তিতে তার সীতা চরিত্রে অভিনয় নিয়ে যখন সমালোচনা হয়, তখন নয়নতারা বলেছিলেন তিনি সীতা, ভূত, বন্ধু অথবা প্রেমিকা – যেকোন চরিত্রে অভিনয় করতে পারেন।

লেডি সুপারস্টার নয়নতারা

৬। প্রথমসারির অভিনেতাদের পাশে নয়নতারা
নয়নতারা দক্ষিন ভারতীয় সিনেমায় প্রথমসারির তারকাদের সমান গুরুত্ব পেয়ে থাকেন। লেডি সুপারস্টার নয়নতারা অভিনীত ‘কোলামাভু কোকিলা’ সিনেমাটি যখন মুক্তি পায় চেন্নাইয়ের বেশীরভাগ প্রেক্ষাগৃহ সকাল থেকে সিনেমাটি প্রদর্শন শুরু করেছিলো। এরকম ঘটনা সাধারণত প্রথমসারির অভিনেতাদের সিনেমার মুক্তির ক্ষেত্রে দেখা যায়। দক্ষিণ ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে কোন নারী কেন্দ্রিক একটি সিনেমার ক্ষেত্রে এটাই প্রথম ঘটনা। যার হাত ধরে নারী কেন্দ্রিক সিনেমার এরকম অনন্য একটি উদাহরণ তৈরি হয়েছে তিনি লেডি সুপারস্টার ছাড়া আর কি হতে পারেন!

৭। নতুন নির্মাতাদের সুযোগ দেয়া
লেডি সুপারস্টার নয়নতারা সবসময় ভিন্ন ধারার চিত্রনাট্যের প্রতি বেশী গুরুত্ব দিয়ে থাকেন। গল্পের প্রয়োজনে যেখানে শক্তিশালী ব্যক্তিত্বের প্রয়োজন হয় সেখানে নির্মাতাদের প্রথম পছন্দ থাকেন নয়নতারা। আর মজার বিষয় হচ্ছে নয়নতারা অভিনীত এই সিনেমাগুলো বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অভিষিক্ত নির্মাতাদের হয়ে থাকে। উদাহরণ স্বরূপ, তামিলের বর্তমান সময়ের অন্যতম জনপ্রিয় পরিচালক এটলি কুমারের প্রথম সিনেমার কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন নয়নতারা। নতুন নির্মাতাদের সাথে কাজ প্রসঙ্গে একটি আলাপচারিতায় নয়নতারা জানিয়েছেন, নতুন নির্মাতাদেড় চিত্রনাট্যে নতুন কিছু পাওয়া যায়। নতুনত্বের কারনেই নতুন নির্মাতাদের সাথে কাজ করতে বেশী স্বচ্ছন্দবোধ করে থাকেন।

লেডি সুপারস্টার নয়নতারা মানেই গল্প এবং চিত্রনাট্যে ভিন্নতা। অভিনেতাদের দাপটের একটি ইন্ডাস্ট্রিতে একজন অভিনেত্রীর নিজের জায়গা তৈরি করতে পারাটা নিঃসন্দেহে গর্বের। শুধু নিজের অবস্থান নয়, নারী কেন্দ্রিক সিনেমার জনপ্রিয়তা এবং গ্রহণযোগ্যতার ক্ষেত্রে নয়নতারা একজন পথপ্রদর্শক হয়ে হাজির হয়েছেন সবার সামনে। লিখাটা শেষ করছি বলিউড সিনেমার ভক্তদের একটি সুখবর দিয়ে। এটা সবাই জানি যে, খুব শীগ্রই বলিউডে অভিষেক হতে যাচ্ছে নয়নতারার। আর সেটাও বলিউড বাদশা শাহরুখ খানের বিপরীতে আর পরিচালনা করছেন নয়নতারার প্রিয় নির্মাতা এটলি কুমার।

আরো পড়ুনঃ
যে পাঁচটি কারনে মঞ্জু ওয়ারিয়ার একজন সত্যিকার লেডি সুপারস্টার!
লেডি সুপারস্টার নয়নতারা অভিনীত যে আটটি সিনেমা অবশ্যই দেখা উচিত
সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিকে প্রভাবিত করা আনুশকা শেঠি অভিনীত ৬টি শক্তিশালী চরিত্র

By নিউজ ডেস্ক

এ সম্পর্কিত

%d