আমি যে ধরনের সিনেমা করি তা থেকে দূরে সরে যেতে চাইঃ দুলকার সালমান

সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে মালয়ালাম তারকা দুলকার সালমান অভিনীত নতুন রোম্যান্টিক সিনেমা ‘সীতা রামম’। হনু রাঘবপুদি পরিচালিত এই সিনেমাটির মাধ্যমে প্রযোজনা সংস্থা বৈজয়ন্তী মুভিজের সাথে দ্বিতীয় বারের মত কাজ করলেন এই অভিনেতা। সিনেমাটিতে আরো অভিনয় করেছেন মৃণাল ঠাকুর, রশ্মিকা মান্দান্না, সুমন্থ এবং থারুন ভাস্কর। তেলেগু, তামিল এবং মালয়ালম ভাষায় সিনেমাটি বিশ্বব্যাপী মুক্তি পেয়েছে। ‘সীতা রামম’ মুক্তিকে কেন্দ্র করে, দুলকার হায়দ্রাবাদে একটি মিডিয়ার সাথে মতবিনিময় করেন। সেই আলাপচারিতার চুম্বক অংশ ফিল্মীমাইক পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।

‘সীতা রামম’ সিনেমার মূল আকর্ষন কী?
এটি একটি মৌলিক গল্প। আমার মনে হয় না মানুষ আর এই ধরনের গল্প লিখছে। আমি সিনেমাটির বিষয়বস্তু পছন্দ করেছি। এটি এমন কিছু যা আমি আগে করিনি।

আপনি সম্প্রতি বলেছিলেন যে আপনি রোমান্টিক সিনেমা করা বন্ধ করে দিবেন।
দর্শক আমাকে অনেকদিন ধরেই রোমান্টিক নায়ক হিসেবে দেখছেন। তাই, আমি সেই ইমেজ ভাঙতে চাই। আমার বয়স বাড়ছে। আমি যে ধরনের সিনেমা করি তা থেকে দূরে সরে যেতে চাই। এখন আমি আরও পরিণত গল্প এবং পরীক্ষা করতে চাই।

- Advertisement -

‘সীতা রামম’ সিনেমায় আপনার ভূমিকা সম্পর্কে বলুন।
আমি রাম নামে একজন সেনা অফিসারের চরিত্রে অভিনয় করছি, যিনি একজন অনাথ। তিনি একজন সুখী এবং ইতিবাচক মানুষ।

- Advertisement -

‘মহানতি’র পর বৈজাতান্তী মুভিজের সাথে আপনার দ্বিতীয় সিনেমা ‘সীতা রামম’। তাদের সাথে আপনার কাজের অভিজ্ঞতা কেমন?
বৈজয়ন্তী মুভিজ আমার পরিবারের মতো। প্রযোজক অশ্বিনী দত্ত গারু আমার প্রিয় মানুষ। বৈজয়ন্তী মুভি সবসময় আমার জন্য বিশেষ কিছু নিয়ে আসে।

আপনি এবং আপনার বাবা মামুত্তি কি সিনেমা নিয়ে কথা বলেন?
আমার কোন চিত্রনাট্য ভালো লাগলে, আমি দ্রুত ওয়ান-লাইনারে তার সাথে শেয়ার করি। তিনি পরামর্শ দেন যে আমি ভালো সিনেমা করি এবং ভালো চিত্রনাট্য মিস না করি। সে আমার আর্দশ. আমি তাকে গর্বিত করতে চাই।

- Advertisement -

আপনি এখন পর্যন্ত বিভিন্ন ভাষায় ৩০ টিরও বেশি সিনেমা করেছেন। আপনি এটাকে কিভাবে দেখছেন?
আমি এখনও মনে করি আমি কম করেছি। আপনি যদি আমার সমসাময়িক কাউকে মালায়লাম ভাষায় নেন, তাদের মধ্যে কেউ কেউ বছরে ১০ থেকে ১২টি সিনেমা করছেন। এমনকি আমার বাবা এক বছরে ৩০টিরও বেশি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। তাই, আমি এখনও মনে করি আমি যথেষ্ট করছি না।

আপনি ‘প্যান-ইন্ডিয়া’ শব্দটি পছন্দ করেন না। এর বিকল্প হিসেবে আপনি কী পরামর্শ দেবেন?
যখন কোন কিছু অতিরিক্ত ব্যবহার করা হয় তখন আমরা তা শুনতে শুনতে ক্লান্ত হয়ে যাই। এখন আমি এই প্যান-ইন্ডিয়া শব্দটি ছাড়া একটি নিবন্ধ বা একটি সাক্ষাৎকার দেখি না। আমি মনে করি না এটি একটি নতুন ধারণা। অমিতাভ বচ্চন, রজনীকান্ত এবং শাহরুখ খানের মতো তারকাদের সিনেমা অনেক আগেই সীমানা ছাড়িয়ে গেছে। এখন আমি মনে করি যে ‘একটি প্যান-ইন্ডিয়া সিনেমা’ বলে জোর দেওয়ার দরকার নেই।

আরো পড়ুনঃ
আলাপচারিতায় মহেশ বাবু
আলাপচারিতায় মঞ্জু ওয়ারিয়র
আলাপচারিতায় বিজয় সেতুপতি

এ সম্পর্কিত

আরো পড়ুন

- Advertisement -
- Advertisement -

সর্বশেষ

মুক্তি প্রতীক্ষিত

  • লিডার আমিই বাংলাদেশ
    লিডার আমিই বাংলাদেশ