নতুন মেয়াদে শিল্পী সমিতির নেতৃত্ব পেতে মুখোমুখি নিপুণ এবং জায়েদ খান

নিপুণ এবং জায়েদ খান

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২০-২১ মেয়াদে সভাপতি  মিশা সওদাগর এবং সাধারণ সম্পাদক পদে জায়েদ খান দায়িত্ব পালন করেছেন। নতুন মেয়াদের নির্বাচনকে সামনে রেখে শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর) তাঁরা দুজনেই ক্ষমতা হস্তান্তর করেছেন বলে জানা গেছে। ইতিমধ্যে ঘোষণা এসেছে এই সংগঠনটির ২০২২-২৪ মেয়াদী নির্বাচন আগামী ২৮ জানুয়ারি বিএফডিসিতে অনুষ্ঠিত হবে। সবকিছু ঠিক থাকলে এটি হতে যাচ্ছে শিল্পী সমিতির ১৭তম নির্বাচন। আর নিপুণ এবং জায়েদ খান মুখোমুখি হচ্ছেন এই নির্বাচনকে ঘীরে।

- Advertisement -

এদিকে মেয়াদের এই নির্বাচন ঘিরে জমে উঠছে চলচ্চিত্রের কেন্দ্রবিন্দু বিএফডিসি। নির্বাচন এলেই যেনো উৎসব আবহ তৈরি হচ্ছে শিল্পীদের মনে। তাই বিএফডিসিতে বেড়েছে শিল্পীদের আনাগোনা। সন্ধ্যা হলেই ছুটে আসছেন প্রাণের এফডিসিতে। আর শিল্পী সমিতির নির্বাচনকে সামনে রেখে চলছে প্যানেল নিয়ে নানান আলোচনা। এবার নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করবেন পীরজাদা হারুন। আর সদস্য হিসেবে সাথে আছেন বি এইচ নিশান ও বজলুর রাশীদ চৌধুরী। সোহানুর রহমান সোহান, মোহাম্মদ হোসেন জেমী ও মোহাম্মদ হোসেনকে নিয়ে গঠন করা হয়েছে আপিল বোর্ড।

২০২২-২৪ মেয়াদী এই নির্বাচনে এবারে আলোচিত দুটি প্যানেলের মধ্যে একটিতে সভাপতি পদে নির্বাচন করছেন অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন। তার সঙ্গে সাধারণ সম্পাদক পদে দেখা যাবে অভিনেত্রী নিপুণকে। আর অন্য প্যানেলে নির্বাচন করবেন পরপর দু’বার নির্বাচিত সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান। এ নির্বাচনে জয়ী হলে তৃতীয় বারের মতো সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক হবেন মিশা-জায়েদ।

- Advertisement -

তৃতীয় মেয়াদি প্রার্থী তালিকায় জায়েদ খান-মিশা সওদাগর বেশিরভাগ শিল্পীদের কাছে আস্তার প্রতীক। শুধু করোনায় নয়, সবসময় মানুষের পাশে থাকেন তারা। মিশা-জায়েদ সম্পর্কে বলতে গিয়ে শিল্পী সমিতির এক সদস্য বলেন, একটা মানুষ,কখনো নিজ হাতে লাশ দাফন করেন,আবার সেই হাতে অসচ্ছল শিল্পী হাতে খাবার তুলে দেন। শুধু শিল্পী নয়, কখনো-কখনো ইফতার নিয়ে ছুটে চলেন অসহায় ছিন্নমূল মানুষের পাশে, আবার কখনো মধ্য রাতে সেহরির জন্য খাবারের বাটি হাতে চষে বেড়ান নগরীর অলিগলি। দেশে করোনার সময় ভালো কাজ দেশের শিল্পীদের জন্য সেটা অবশ্যই সবারই জানা।

অন্যদিকে শিল্পী সমিতির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক প্রার্থীর তালিকায় আছেন ইলিয়াস কাঞ্চন ও নিপুণ। দুজনেই চলচ্চিত্র শিল্পীদের মধ্যে যে দীর্ঘদিনের কোন্দল এবং দেশীয় চলচ্চিত্রের শিল্পী কাজ কমে গেছে, সেটা নিয়ে কাজ করতে চান। শিল্পীদের দীর্ঘদিনের কোন্দল এবং বেকার শিল্পীদের আবারও কাজে ফেরানোর তাড়না থেকে এ নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন ইলিয়াস কাঞ্চন ও নিপুণ। কাঞ্চন ও নিপুণকে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সদস্যদের মধ্যে বড় একটি অংশ সমর্থন দিচ্ছেন বলে গুঞ্জন রয়েছে এফডিসিতে।তা দের পক্ষে প্রচারণায় নেমেছেন একাধিক জনপ্রিয় অভিনেতা-অভিনেত্রী।

- Advertisement -

শিল্পী সমিতির এক সিনিয়র সদস্য বলেন, ‘ইলিয়াস কাঞ্চন সাহেব ও নিপুণ দুজনেই শিল্পীদের জন্য কাজ করেছেন আগে। তারা শিল্পী সমিতির কোনো পদে না থেকেও করোনার সময় নিপুণ এফডিসির শিল্পী ও কলাকুশলীদের একাধিক বার খাবার ও নগর অর্থ সহায়তা করেছেন। এতে করে তিনি সাধারণ শিল্পীদের কাছে মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে পরিচিত।ইলিয়াস কাঞ্চন সাহেবও শিল্পী সমিতিতে এক টাকা দিয়েছেন করোনার সময় অসচ্ছল শিল্পীদের জন্য। পাশাপাশি তিনি ব্যাক্তিগত ভাবেও অনেক শিল্পীকে সাহায্য করেছেন।‘ তাঁরা দুজনের শিল্পী সমিতির নেতৃত্বে আসলেই হয়তো আরও উন্নতি হবে শিল্পী সমাজের এমনটাই ধারণা চলচ্চিত্র শিল্পী সমাজের!

ইলিয়াস কাঞ্চন ও নিপুণ সাধারণ শিল্পী থেকে শুরু করে জনপ্রিয় শিল্পীদের গুরুত্ব দিয়ে প্যানেল নির্ধারণে কাজ করছেন। নিজেদের গ্রহণযোগ্যতা প্রমাণ করতে ছুটে যাচ্ছেন সাধারণ শিল্পীদের কাছে। তবে এবারের শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সভাপতি প্রার্থী নিয়ে তেমন আলোচনা না থাকলেও সাধারণ সম্পাদক পদে নিপুণ ও জায়েদ খানকে নিয়ে বেশ আগে থেকে রয়েছে আলোচনা। এই দুজনের মধ্যে সাধারণ শিল্পীদের রায় দেখতে হলে অবশ্য অপেক্ষা করতে হবে আগামী ২৮ জানুয়ারি পর্যন্ত।

আরো পড়ুনঃ
ঘটনাবহুল ঢালিউড ২০২১: সিনেমায় ফ্লপ কিন্তু বিতর্কে সবাই ব্লকবাস্টার!
ফিরে দেখা ঢালিউড ২০২১: বাণিজ্যিক সিনেমার দুর্দশার আরো একটি বছর
টানা তৃতীয় সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হলেন বাপ্পী চৌধুরী এবং জাহারা মিতু

এ সম্পর্কিত

আরো পড়ুন

- Advertisement -

সর্বশেষ

মুক্তি প্রতীক্ষিত

  • লিডার আমিই বাংলাদেশ
    লিডার আমিই বাংলাদেশ