আরো একটি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেলো ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ এবং বাঁধন

আরো একটি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি

প্রথমবারের মত কান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে অফিশিয়াল সিলেকশনে স্থান পেয়েছিলো বাংলাদেশের সিনেমা ‘রেহানা মরিয়ম নূর’। প্রদর্শনের পর পৃথিবীর অন্যতম প্রাচীন ও গৌরবময় এই  চলচ্চিত্র উৎসবে প্রশংসিতও হয়েছিলো তরুণ নির্মাতা আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের পরিচালনায় সিনেমাটি। ছবিটি শেষ হওয়ার পর দর্শক দাঁড়িয়ে সম্মান প্রদর্শনের সাথে করতালিতে মুখরিত হয়েছিলো ডবসি থিয়েটার। কান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের পর অস্কারে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করছে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’। এদিকে সম্প্রতি জানা গেছে আরো একটি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেয়েছে আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ এবং অভিনেত্রী বাঁধন।

- Advertisement -

প্রকাশিত খবরে জানা গেছে এশিয়া প্যাসিফিক স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ডস (অ্যাপসা) পুরস্কার জিতেছে আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ পরিচালিত ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ সিনেমাটি। সেইসঙ্গে এই ছবির জন্য সেরা অভিনেত্রী নির্বাচিত হয়েছেন আজমেরী হক বাঁধন। উক্ত পুরষ্কারে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ অস্ট্রেলিয়ার সিনেমা ‘দ্য ড্রোভারস ওয়াইফ: দ্য লিজেন্ড অব মলি জনসন’ এর সাথে যৌথভাবে  ‘জুরি গ্র্যান্ড প্রাইজ’ (উৎসবের দ্বিতীয় পুরস্কার) জিতেছে। আর সিনেমাটিতে অভিনয়ের জন্য সেরা অভিনেত্রী নির্বাচিত হয়েছেন আজমেরী হক বাঁধন। অভিনেত্রী বিভাগে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ৫ জনকে দেয়া হয়েছিলো মনোনয়ন। রেহানা চরিত্রে দুর্দান্ত অভিনয়ের জন্য শেষ পর্যন্ত সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার অর্জন করেন আজমেরী হক বাঁধন।

সেরা অভিনেত্রীর পুরষ্কারের অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে বাঁধন বলেন, ‘এ পুরস্কার অনেক আনন্দের। অনেক প্রেরণার। ‘রেহানা নূর মরিয়ম’ সিনেমাটি আমাকে নতুন জন্ম দিয়েছে।‘ সেরা অভিনেত্রী বিভাগে বাঁধন ছাড়াও মনোনয়ন পেয়েছিলেন ইসরায়েলি অভিনেত্রী আলেনা ইউভ, অস্ট্রেলিয়ান অ্যাসে ডেভিস ও লিয়া পারসেল এবং রাশিয়ান অভিনেত্রী ভ্যালেন্তিনা রোমানোভা। প্রসঙ্গত অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ডের গোল্ড কোস্ট শহরে বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) অ্যাপসা বিজয়ীদের তালিকা ঘোষণা করা হয়। ২৫টি এশিয়া প্যাসিফিক দেশের মোট ৩৮টি ছবি মনোনয়ন তালিকায় ছিলো এবার।

- Advertisement -

প্রাইভেট মেডিকেল কলেজের একজন শিক্ষক রেহানা মরিয়ম নূরকে কেন্দ্র করেই এই সিনেমার গল্প। যেখানে রেহানা একজন মা, মেয়ে, বোন ও শিক্ষক হিসেবে জটিল জীবনযাপন করে। এরমধ্যে এক সন্ধ্যায় কলেজ থেকে বেরোনোর সময় রেহানা একটি অপ্রত্যাশিত ঘটনার সাক্ষী হয়। এরপর থেকে সে এক ছাত্রীর পক্ষ হয়ে সহকর্মী এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে ঘটনার প্রতিবাদ করতে শুরু করেন এবং ক্রমশ একরোখা হয়ে ওঠেন। কিন্তু একই সময়ে তার ৬ বছর বয়সী মেয়ের বিরুদ্ধে স্কুল থেকে রূঢ় আচরণের অভিযোগ করা হয়। এমন অবস্থায় অনড় রেহানা তথাকথিত নিয়মের বাইরে থেকে সেই ছাত্রী ও তার সন্তানের জন্য ন্যায় বিচারের খোঁজ করতে থাকেন।

পোটোকল ও মেট্রো ভিডিওর ব্যানারে ছবিটি প্রযোজনা করেছেন সিঙ্গাপুরের প্রযোজক জেরেমী চুয়া এবং নির্বাহী প্রযোজক হিসেবে আছেন এহসানুল হক বাবু। আর সিনেমাটি সহ-প্রযোজনা করেছেন রাজীব মহাজন, আদনান হাবিব এবং সাঈদুল হক খন্দকার। বাঁধন ছাড়াও এ সিনেমায় আরও অভিনয় করেছেন ফারজানা বিথী,আফিয়া জাহিন জাইমা, কাজী সামি হাসান, আফিয়া তাবাসসুম বর্ন, ইয়াছির আল হক, সাবেরী আলমসহ অনেকে।

- Advertisement -

আরো পড়ুনঃ
অস্কারে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’: ১২ই নভেম্বরে বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি!
পুরষ্কার না জিতলেও ভালোবাসা নিয়ে ফিরছে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ সিনেমার টিম
কানে স্ট্যান্ডিং ওভেশন পেল ‘রেহানা মরিয়ম নূর’: বাঁধনের চোখে আনন্দ অশ্রু

এ সম্পর্কিত

আরো পড়ুন

- Advertisement -

সর্বশেষ

মুক্তি প্রতীক্ষিত

  • লিডার আমিই বাংলাদেশ
    লিডার আমিই বাংলাদেশ