দীতির শেষ সিনেমা: মৃত্যুর ৫ বছর পর পেলো মুক্তির অনুমতি

দীতির শেষ সিনেমা

২০১১ সালে শুরু হয়েছিলো এফ আই মানিক পরিচালিত ‘এ দেশ তোমার আমার’ সিনেমার দৃশ্যধারনের কাজ। দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর অবশেষে দীতির শেষ সিনেমা প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শনের অনুমতি পেলো। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টম্বর) বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড সিনেমাটিকে ছাড়পত্র দিয়েছে বলে সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন সিনেমাটির অভিনেতা এবং বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান। মৃত্যুর পাঁচ বছর পর অবশেষে সেন্সর পেলো দিতি অভিনীত দেশপ্রেমের সিনেমা ‘এ দেশ তোমার আমার’।

- Advertisement -

সিনেমাটি প্রসঙ্গে জায়েদ খান বলেন, ‘দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর নানা জটিলতা কাটিয়ে দেশ প্রেমের গল্পের ছবি ‘এ দেশ তোমার আমার’ সেন্সর পেয়েছে। সেন্সর বোর্ডের সদস্য অরুণা বিশ্বাস আমাকে ফোন দিয়ে ছবির প্রশংসা করেছেন। ছবির দুই অভিনয় শিল্পী দিতি আপা ও মিজু আহমেদ ভাই আজ আমাদের মাঝে নেই। তাদের সঙ্গে কাজের অনেক স্মৃতি রয়েছে। আশা করছি তারকা নির্ভর ছবিটি দর্শকরা পছন্দ করবেন।‘

সিনেমাটিতে কিংবদন্তী অভিনেত্রী দিতির সাথে অভিনয়ের সুযোগ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের দেশের কিংবদন্তি অভিনেত্রী দিতির সর্বশেষ সিনেমা এটি। এতে কাজ করতে গিয়ে তার সঙ্গে আমাদের প্রত্যেকেরই অনেক স্মৃতির জন্ম হয়েছিল। সেই সময়টার কথা খুব মনে পড়ছে। তিনি মারা যাওয়ার পরও আমরা সিনেমাটির শুটিং করেছি। আশা করি সিনেমাটি দর্শকের ভালো লাগবে।’

- Advertisement -

এদিকে সিনেমাটির নির্মাতা এফ আই মানিক সুত্রে জানা গেছে নানা জটিলতার কারণে এত দিন কাজ শেষ করতে দেরি হয়ে যায়। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘দিতি মারা যাওয়ার বেশ কিছুদিন আগে সিনেমার শুটিং শেষ করেছিলাম। এটি ৩৫ মিলিমিটারে শুট করা হয়েছিল, যা পরে ডিজিটালে ট্রান্সফার করা হয়েছে। সিনেমায় গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন ডিপজল। মাঝে তিনি অসুস্থ থাকায় কাজ শেষ করতে সময় লেগেছে।’

প্রসঙ্গত, মরণব্যাধি ক্যানসার আক্রান্ত হয়ে ২০১৬ সালের ২০ মার্চ ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন দিতি। ১৯৮৪ সালে ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে চলচ্চিত্রজগতে পা রাখেন নব্বই দশকের অন্যতম জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী। তাঁর প্রথম সিনেমা উদয়ন চৌধুরী পরিচালিত ‘ডাক দিয়ে যাই’। যদিও শেষ পর্যন্ত সিনেমাটি মুক্তি পায়নি। দিতি অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত প্রথম চলচ্চিত্র ‘আমিই ওস্তাদ’। এরপর সুভাষ দত্ত পরিচালিত ‘স্বামী স্ত্রী’ সিনেমাতে অভিনয় করে ১৯৮৭ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান এই অভিনেত্রী।

আরো পড়ুনঃ
জেলেপল্লীতে নায়ক সাইমন: শুরু হচ্ছে সরকারি অনুদানের সিনেমা ‘জলরঙ’
জানুয়ারিতে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে দীপংকর দীপনের ‘অপারেশন সুন্দরবন’
অনুদানের সিনেমায় মৌসুমী: সাথে আছেন ছোট পর্দার আহমেদ রুবেল

এ সম্পর্কিত

আরো পড়ুন

- Advertisement -

সর্বশেষ

মুক্তি প্রতীক্ষিত

  • লিডার আমিই বাংলাদেশ
    লিডার আমিই বাংলাদেশ