মাহিয়া মাহির সঙ্গে বিচ্ছেদ প্রসঙ্গে যা বললেন স্বামী অপু!

মাহিয়া মাহির সঙ্গে বিচ্ছেদ

২০১৬ সালের ২৪ মে দুই পরিবারের সম্মতিতে মাহিয়া মাহির বিয়ে হয় সিলেটের মাহমুদ পারভেজ অপুর সঙ্গে। কিন্তু পঞ্চম বিবাহবার্ষীকির একদিন আগেই স্বামীর সঙ্গে নিজের বিচ্ছেদের ঘোষনা দিলেন ঢালিউডের অগ্নিকন্যা খ্যাত এই অভিনেত্রী। অপুর সাথে মাহির দাম্পত্য জীবনে কলহ চলছে বলে গুঞ্জন গুঞ্জন শোনা গেলেও মাহি সেসব উড়িয়ে দিয়েছেন। কিন্তু অবশেষে সব গুঞ্জনের অবসান ঘটিয়ে স্বামীর সাথে বিচ্ছেদের ঘোষনা দিলেন মাহি।

- Advertisement -

শনিবার মধ্যরাতে নিজের বিচ্ছেদের বিষয়টি নিয়ে মাহি ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন। সেই পোস্টে মাহি লিখেন, ‘এই পৃথিবীর সবচেয়ে ভালো মানুষটার সাথে থাকতে না পারাটা অনেক বড় ব্যর্থতা। পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ শ্বশুর বাড়ির মানুষগুলোকে আর কাছ থেকে না দেখতে পাওয়াটা, বাবার মুখ থেকে মা জননী, বড় বাবার মুখ থেকে সুনামাই শোনার অধিকার হারিয়ে ফেলাটা সবচেয়ে বড় অপারগতা। আমাকে মাফ করে দিও। তোমরা ভালো থেকো। আমি তোমাদের আজীবন মিস করবো।‘

মাহিয়া মাহির সঙ্গে বিচ্ছেদ

- Advertisement -

এদিকে মাহির সঙ্গে বিচ্ছেদ প্রসঙ্গে অপু জানিয়েছেন তারা এখনো স্বামী স্ত্রী। আইনিভাবে বিচ্ছেদ এখনো হয়নি তবে খুব শীগ্রই আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। এ প্রসঙ্গে একটি দৈনিক পত্রিকার সাথে আলাপকালে অপু বলেন ‘এখনো বিচ্ছেদ হয়নি। তবে আমার আর মাহির পরিবার মিলে বিচ্ছেদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছি। শিগগিরই আইনগত প্রক্রিয়া শুরু হবে।’ বিচ্ছেদের কারন প্রসঙ্গে অপু আরো বলেন, ‘ছয় মাস ধরে আমরা চূড়ান্ত চেষ্টা করেছি বিচ্ছেদটা ঠেকানোর, কিন্তু পারিনি। দুজনেরই চেষ্টার কোনো কমতি ছিল না।‘

বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত দুই পরিবারের সম্মতিতে হয়েছে উল্লেখ করে অপু বিলেন, ‘আন্তরিকতার খামতি ছিল না। ওর পরিবার আর আমার পরিবারের মধ্যেও একটা চমৎকার উষ্ণ সম্পর্ক রয়েছে। তারপরও দুজনের সম্পর্ক এগিয়ে নেওয়াটা সম্ভব হচ্ছে না। দুজন মিলেই পরিবারের সবার সঙ্গে আলাপ করে পারস্পরিক বোঝাপড়ার ভিত্তিতে সম্পর্কের ইতি টানতে হলো। আমাদের এই সম্পর্ক শেষ হয়ে যাওয়ার বিষয় নিয়ে কেউ ভুল ব্যাখা করবেন না প্লিজ। মাহিকেও ভুল বুঝবেন না। সংসার না হতেই পারে, তাই বলে আমরা যেন কাউকে দোষারোপ না করি। আমরা বন্ধু ছিলাম, আছি, থাকব।’

মাহিয়া মাহির সঙ্গে বিচ্ছেদ

উল্লেখ্য যে, যুক্তরাজ্য থেকে কম্পিউটার প্রকৌশল নিয়ে পড়ালেখা করে সিলেটে নিজেদের পারিবারিক ব্যবসা দেখাশোনা করেন অপু। জানা গেছে ঈদের কিছুদিন আগে মাহি সিলেটে তার শ্বশুরবাড়ি যান। সেখানে একটি বিষয় নিয়ে স্বামী পারভেজ মাহমুদ অপুর সঙ্গে তার মনোমালিন্য হয়। এতে মাহি রাগ করে রাজশাহী চলে চান। তারপর থেকে দুজনের মধ্যে যোগাযোগ বন্ধ ছিল। এরপরই মাহির ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েই শুরু হয় বিচ্ছেদের আনুষ্ঠানিকতা।

আরো পড়ুনঃ
একাধিক সিনেমা নিয়ে টানা শুটিংয়ে ব্যস্ত মাহিয়া মাহি
‘বুবুজান’ মাহিয়া মাহি: আর শান্তর বিপরীতে থাকছেন নিশাত সালওয়া
নতুন ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হলেন অগ্নিকন্যা মাহিয়া মাহিঃ সাথে নবাগত আদর

এ সম্পর্কিত

আরো পড়ুন

- Advertisement -

সর্বশেষ

মুক্তি প্রতীক্ষিত

  • লিডার আমিই বাংলাদেশ
    লিডার আমিই বাংলাদেশ