পর্দায় সাহসী দৃশ্যে হাজির হয়েছিলেন টলিউডের যে আটজন অভিনেত্রী!

পর্দায় সাহসী দৃশ্যে

পর্দায় সাহসী দৃশ্যে হাজির হওয়াটা একসময় শুধু হলিউডের অভিনেত্রীদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল। তবে সাম্প্রতিক সময়ে সেই ধারায় ভারতের অভিনেত্রীদের নাম লিখাতে দেখা গেছে। ইতিমধ্যে সাহসী দৃশ্য পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে অভ্যস্ত হয়েছেন বলিউডের অভিনেত্রীরা। অবশ্য এরমধ্যেই টলিউড অভিনেত্রীরাও পর্দায় সাহসী দৃশ্যে অভিনয়ের উদাহরণ স্থাপন করেছেন। স্বস্তিকা, পাওলির, ঋ সেনের মতো অভিনেত্রীরা এখন চরিত্রের প্রয়োজনে পর্দার সামনে নিজেদের মেলে ধরতে দ্বিধাবোধ করেন না। আজকের এই প্রতিবেদনে টলিউডের আটজন অভিনেত্রী নিয়ে আলোচনা থাকছে যারা গল্পের প্রয়োজনে পর্দায় সাহসী দৃশ্যে হাজির হয়েছিলেন।

পর্দায় সাহসী দৃশ্যে

১। স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ঃ পর্দায় সাহসী দৃশ্যে হাজির হওয়ার ক্ষেত্রে টলিউড অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় অতুলনীয়। তার এই সাহসী পর্দা উপস্থিতির কারনে তাকে নিয়ে বিতর্ক সবসময়ের। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার পোশাক নিয়ে জোর সমালোচনা চলে। বানিজ্যিক সিনেমার বাইরে বেরিয়ে ভিন্ন স্বাদের চরিত্রে নিজেকে মেলে ধরার ক্ষেত্রে কখনও পিছপা হননি স্বস্তিকা। চল্লিশোর্ধ স্বস্তিকার বিভিন্ন সময়ে সাহসী ফটোশুটে সোশ্যাল মিডিয়ার উষ্ণতার ছড়ালেও মৈনাক ভৌমিকের ‘আমি আর আমার গার্লফ্রেন্ডস’ সিনেমায় প্রথমবার সাহসী দৃশ্যে পড়ে বড়পর্দায় হাজির হয়েছিলেন স্বস্তিকা।

পর্দায় সাহসী দৃশ্যে

২। ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তঃ টলিউড অভিনেত্রীদের সাহসী পোশাকে পর্দায় আসার প্রচলন বলতে গেলে প্রথম ঋতুপর্ণাই চালু করেছিলেন। ‘তৃষ্ণা’ সিনেমায় তার সাহসী লুক দেখে তৎকালীন সময়ে অবাক হয়েছিলেন অনেকেই। তবে স্থুল চেহারায় তার এই সাহসী পোশাক পরা নিয়ে জোর সমালোচনাও হয়েছিলো। কিন্তু ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর পর্দায় সাহসী দৃশ্যে হাজির হওয়াটা নিঃসন্দেহে চমকে দিয়েছিলো দর্শকদের।

পর্দায় সাহসী দৃশ্যে

৩। পাওলি দামঃ টলিউডের পাশাপাশি বলিউডর সিনেমায়ও অভিনয় করেন পাওলি দাম। হিন্দি ‘হেট স্টোরি’ হোক বা বাংলা ‘ছত্রাক’ – সাহসী দৃশ্য তার অভিনয়ের জুড়ি মেলা ভার। চরিত্রের প্রয়োজনে ক্যামেরার সামনে সাহসী রূপে হাজির হতে কোনও রকম দ্বিধায় ভোগেন না এই অভিনেত্রী। একাধিকবার সাহসী পোশাকে ক্যামেরার সামনে ধরা দিয়েছেন পাওলি। তার সেই সিনেমা নিয়ে একদিকে যেমন সমালোচনার ঝড় ওঠে, অপরদিকে দর্শকের থেকে প্রচুর ভালোবাসাও পান এই অভিনেত্রী।

৪। রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ঃ চরিত্রের প্রয়োজনে পর্দায় সাহসী দৃশ্যে হাজির হয়েছিলেন রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ও। অন্তরঙ্গ মুহূর্তের দৃশ্যে অভিনয়ের মাধ্যমে ক্যারিয়ারের শুরুতেই মহাভারতের ‘দ্রৌপদী’ চরিত্রে অভিনয় করে বেশ সাড়া ফেলে দিয়েছিলেন এই অভিনেত্রী। এরপর ‘অন্তরমহল’, ‘মহুলবনীর সেরেং’, ‘শূন্য এ বুকে’ এর মতো একাধিক বাংলা ছবিতে সাহসী দৃশ্যে অভিনয় করেছেন তিনি। ঋতুস্রাব থেকে শুরু করে অন্তরঙ্গ দৃশ্য – সমানভাবে সাবলীল টলিউডের এই অভিনেত্রী।

৫। ঋ সেনঃ টলিউড অভিনেত্রী ঋ সেন ‘ফ্রন্টাল ন্যুডি’ বিষয়টিকে সবচেয়ে সঠিকভাবে পর্দার সামনে তুলে ধরতে পেরেছেন। ‘কসমিক’ সিনেমায় অভিনয় করার পর থেকেই কলকাতা বাংলা সিনেমার সবচেয়ে সাহসী অভিনেত্রী হয়ে উঠেছেন ঋ। অন্তরঙ্গ দৃশ্য থেকে শুরু করে স্বমেহন, সব দৃশ্যই পর্দার সামনে সমানভাবে স্বাচ্ছ্যন্দ তিনি। ‘গান্ডু’, ‘তাসের দেশ’, ‘বিষ’ সিনেমাগুলোতেও পর্দায় সাহসী দৃশ্যে হাজির হয়ে দর্শককে মোহিত করেছে ঋ সেন।

পর্দায় সাহসী দৃশ্যে

৬। শ্রীলেখা মিত্রঃ পর্দায় সাহসী দৃশ্যে হাজির হওয়ার এই তালিকায় রয়েছেন টলিউডের আলোচিত অভিনেত্রী শ্রীলেখাও। পঞ্চাশের কাছাকাছি বয়সেও সমান আবেদনময়ী এই অভিনেত্রী। এই বয়সেও তার গ্ল্যামারে কুপোকাত তার অগণিত ভক্ত। ‘উড়ো চিঠি’, ‘আশ্চর্য প্রদীপ’, ‘হ্যালো কলকাতা’, ‘কাঁটাতার’ এর মতো একাধিক সিনেমায় শ্রীলেখাকে সাহসী দৃশ্যে দেখা গেছে।

৭। নুসরাত জাহানঃ রাজ চক্রবর্তী পরিচালিত ‘শত্রু’ সিনেমার মাধ্যমে ২০১১ সালে বড় পর্দায় অভিষিক্ত হয়েছিলেন টলিউড চিত্রনায়িকা নুসরাত জাহান। এরপর একাধিক ব্যবসা সফল সিনেমার মাধ্যমে টলিউডে নিজের অবস্থান পাকাপোক্ত করেছেন এই অভিনেত্রী। টলিউডের অন্য অভিনেত্রীদের মত নুসরাতকেও পর্দায় সাহসী চরিত্রে দেখা গেছে। ‘খোকা ৪২০’, ‘জুলফিকার’ এবং ‘আমি যে কে তোমার’ সিনেমাগুলোতে সাহসী দৃশ্যে দেখা গেছে এই অভিনেত্রীকে।

৮। মিমি চক্রবর্তীঃ ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী ২০১২ সালে ‘বাপি বাড়ি যায়’ সিনেমাটির মাধ্যমে বড় পর্দায় হাজির হয়েছিলেন। সিনেমাটি বক্স অফিসে সফলতা অর্জন করলে আর পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি এই তারকাকে। নির্মাতা রাজ চক্রবর্তীর সাথে বিচ্ছেদের গুঞ্জন ছাড়া সিনেমায় সাহসী উপস্থিতি জন্য আলোচিত এই অভিনেত্রী। সিনেমার পর্দায় সাহসী পোশাকে হাজির হয়ে হৈচৈ ফেলে দিয়েছিলেন মিমি চক্রবর্তী। ২০১৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘গ্যাংস্টার’ সিনেমায় সাহসী পোশাক এবং লম্বা কিসিং দৃশ্যের মাধ্যমে আলোচনায় এসেছিলেন তিনি। তার শারীরিক ভাষা এবং সংলাপ বলার ধরনেও ছিলো সাহসীকতা।

প্রিয় পাঠক, উপরে উল্লেখিত কোন অভিনেত্রীকে পর্দায় সাহসী দৃশ্যে দেখতে আপনি বেশী পছন্দ করেন? এছাড়া উপরে উল্লেখিত অভিনেত্রী ছাড়া আর কোন অভিনেত্রী এই তালিকায় থাকা উচিৎ বলে আপনি মনে করেন? আমাদের জানিয়ে দিন মন্তব্যে।

আরো পড়ুনঃ
বাংলাদেশের সর্বাধিক প্রেক্ষাগৃহে জিৎ-মিমি চক্রবর্তীর ভারতীয় সিনেমা ‘বাজি’!
নতুন সিনেমার দৃশ্যধারন দিয়ে কাজে ফিরছেন শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়
সোহম চক্রবর্তীর সাথে জুটি হয়ে সিনেমায় ফিরছেন নুসরত জাহান

এ সম্পর্কিত

আরো পড়ুন

- Advertisement -

সর্বশেষ

মুক্তি প্রতীক্ষিত

  • লিডার আমিই বাংলাদেশ
    লিডার আমিই বাংলাদেশ